ন্যাটো জোটের প্রধান সচিব অ্যান্ডের্স ফগ রাসমুসেন তুর্কী-সিরীয় সীমান্ত ঘটনা সংক্রান্ত পরিস্থিতিতে তুরস্ক সম্পর্কে জোটের পরিকল্পনার খুঁটিনাটি জানাতে অস্বীকার করেছেন. আগে মঙ্গলবার, ব্রাসেলসে জোটের ২৮টি সদস্য দেশের প্রতিরক্ষামন্ত্রীদের দুদিনব্যাপী সাক্ষাত্ শুরু হওয়ার প্রাক্কালে রাসমুসেন বলেন যে, “প্রয়োজনের ক্ষেত্রে তুরস্ককে রক্ষার জন্য সমস্ত প্রয়োজনীয় পরিকল্পনা আছে” জোটের. সিরিয়া ও তুরস্কের মাঝে উত্তেজনা বৃদ্ধি পায় ৩রা অক্টোবর সিরিয়ার সীমানার কাছে তুরস্কের আকচাকালে একটি গোলা বিস্ফোরিত হয়, যা সীমানার অন্য দিক থেকে বর্ষিত হয়েছিল. ফলে পাঁচজন নিহত হয় এবং ১১ জন আহত হয়. এর পরে তুরস্ক সিরিয়ার সেই অঞ্চলের উপর গোলার আঘাত হানে, যেখান থেকে গোলাটি বর্ষণ করা হয়েছিল বলে অনুমান করা হয়. রাসমুসেন আশ্বাস দেন যে, আঙ্কারা জোটের সমর্থনের উপর নির্ভর করতে পারে. সেই সঙ্গে তিনি সিরিয়ায় সঙ্কট রাজনৈতিক উপায়ে মীমাংসার প্রয়োজনীয়তার কথা উল্লেখ করেন. ন্যাটো জোটের প্রধান সচিবের মতে, রাষ্ট্রসঙ্ঘের নিরাপত্তা পরিষদের সিদ্ধান্ত গ্রহণ প্রয়োজন, যা সিরিয়ার কর্তৃপক্ষের জন্য “চূড়ান্ত ও সর্বসাধারণ বার্তা” হবে. রাশিয়া এ প্রশ্নে ভারসাম্যপূর্ণ মীমাংসা অনুসন্ধানের পক্ষে মত প্রকাশ করছে.