কঠোর পুলিশী ব্যবস্থা গ্রহণ করে ইরানের কর্তৃপক্ষ জাতীয় মুদ্রা – রিয়াল মুদ্রার স্থিতি যথেষ্ট মাত্রায় পুনর্স্থাপন করতে সক্ষম হয়েছেন. পুলিশী ব্যবস্থা গ্রহণের ফলে তেহেরানে মুদ্রা বিনিময়ের খোলা বাজার বন্ধ হয়েছে, বহু সংখ্যক মুদ্রা ব্যবসায়ী গ্রেপ্তার করা হয়েছে, আর বিনিময় হার নির্ধারিত হয়েছে ১ মার্কিনী ডলারে ২৮ হাজার রিয়াল. গত সপ্তাহে ইরানের রাজধানীর কেন্দ্রস্থলে বাণিজ্য পাড়ায় বিশৃঙ্খলা দেখা দেয়, যখন মুদ্রার খোলা বাজারে ১ ডলারের মূল্য ৩৮-৪০ হাজার রিয়াল অবধি ওঠে. পাশ্চাত্যের বিশ্লেষকরা মনে করেন যে, এ হল নিষেধাজ্ঞার ফল, যা আগে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও ইউরোসঙ্ঘের দ্বারা ইরানের বিরুদ্ধে প্রবর্তিত হয়, লিখেছে বৃটেনের “ফাইন্যানশিয়াল টাইমস” পত্রিকা. মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও ইউরোসঙ্ঘ ইরানের সাথে বাণিজ্যের ক্ষেত্রে পূর্ণ নিষেধাজ্ঞা প্রবর্তনের নতুন ব্যবস্থার পরিকল্পনা করছে. এইভাবে পাশ্চাত্য এ দেশের কঠিন আর্থিক অবস্থা আরও গভীর করার এবং জাতীয় পারমাণবিক কর্মসূচি ত্যাগ করতে বাধ্য করার আশা করে. মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও ইউরোসঙ্ঘ ২০১৩ সালের গোড়ায় ইরানের সাথে বাণিজ্যে বাস্তবিক নিষেধাজ্ঞা প্রবর্তনের প্রশ্ন বিবেচনা করছে ইরানের ব্যাঙ্ক ব্যবস্থার মাধ্যমে সমস্ত আমদানি ও রপ্তানির লেন-দেন অবরোধ করার দ্বারা. তা ইরানে মুদ্রার প্রবাহ আরও হ্রাস করতে পারে, লিখেছে রাশিয়ার “ভেদোমস্তি” পত্রিকা.