নাইজেরিয়ার কর্তৃপক্ষ দেশের উত্তরাঞ্চলে মুবি শহরে পলিটেকনিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ে রক্তাক্ত হত্যাকাণ্ডের তদন্ত শুরু করেছে. নাইজেরিয়ার পুলিশ জানিয়েছে যে, অন্ততপক্ষে ২৬জন, প্রধাণত ছাত্ররা নিহত হয়েছে গুলি চালনার ফলে, যা ছাত্রাবাসে চালিয়েছে ক্যামুফ্লেজ পোষাক পরা অজানা ব্যক্তিরা. আক্রমণকারীরা ছাত্রদের নাম ধরে করিডরে ডেকে তাদের গুলি করে. একজন স্থানীয় বাসিন্দা সাংবাদিকদের বর্ণনা করেছে যে, নিহতদের সংখ্যা আরও বেশি. তার কথায়, অন্ততপক্ষে ৪০ জনকে গুলি করা হয় অথবা ছুরি মারা হয়. এ আক্রমণ ঘটে “বোকো হারাম” রাডিক্যাল ইস্লাম দলের বিরুদ্ধে পুলিশ অভিযান চালানের কয়েক দিন পরে. তবে এ দল আক্রমণের জন্য দায়িত্ব গ্রহণ করে নি, আর প্রেস উল্লেখ করছে যে, নিহতদের মধ্যে যেমন খৃষ্টানরা, তেমনই মুসলমানরা ছিল. কিছু পর্যবেক্ষক এ আক্রমণকে ছাত্রদের ট্রেড-ইউনিয়নে বিরোধের সাথে জড়াচ্ছেন. এ রক্তাক্ত অপরাধের পরে শহরে কার্ফিউ জারি করা হয়েছে. বিশ্ববিদ্যালয় সাময়িকভাবে বন্ধ রয়েছে.