মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র সিরিয়ায় রাসায়নিক অস্ত্র ব্যবহারের সম্ভাবনাকে কেন্দ্র করে পরিস্থিতি তীব্র করে তুলছে, যাতে সিরিয়ার রাষ্ট্রপতি বাশার আসদ-কে উত্খাত করা যায়. এ সম্বন্ধে সোমবার বলেছেন সিরিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়ালিদ মুয়াল্লেম সিরিয়ার “আল-মায়াদিন” টেলি-চ্যানেলের সম্প্রচারে.মন্ত্রী উল্লেখ করেন যে, এইভাবেই মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ২০০৩ সালে ইরাকে অনুপ্রবেশের আগে ব্যাপক নরহত্যার অস্ত্রের উপস্থিতির কথা ঘোষণা করে. এ ইন্টারভিউর অংশ উদ্ধৃত করে “ফ্রান্স প্রেস” সংবাদ এজেন্সি জানাচ্ছে, এ প্রশ্ন (সিরিয়ার দ্বারা রাসায়নিক অস্ত্র ব্যবহারের বিপদ)- মার্কিনী প্রশাসনের কল্পনা মাত্র. এমনকি সিরিয়ার যদি রাসায়নিক অস্ত্র থেকেও থাকে, আমি জোর দিয়ে বলছি, আমরা তা নিজস্ব জনগণের বিরুদ্ধে ব্যবহার করতে পারি না. এটা একেবারে বাজে কথা. একই সঙ্গে “ফ্রান্স প্রেস” উল্লেখ করছে যে, ইন্টারভিউতে মুয়াল্লেম সঠিকভাবে বলেন নি সিরিয়ার সরকারের হাতে রাসায়নিক অস্ত্র আছে কি না. আগে জুন মাসে দামাস্কাস ইঙ্গিত দিয়েছিল যে, এমন অস্ত্রের ভাণ্ডার তার আছে, উল্লেখ করা হয়েছে খবরে.