তুরস্কের প্রধানমন্ত্রী রেজেপ তাইইপ এর্দোগান রবিবার আঙ্কারায় অনুষ্ঠিত ক্ষমতাসীন পার্টি – ন্যায় ও বিকাশের পার্টির চতুর্থ কংগ্রেসে পুনরায় তার নেতা নির্বাচিত হয়েছেন. পার্টির সাধারণ সভাপতির পদের জন্য একমাত্র প্রার্থী ছিলেন এর্দোগান এবং তিনি পরপর এই তৃতীয় বার ইস্লামপন্থী দৃষ্টিভঙ্গী সম্বলিত পার্টির নেতৃত্ব করছেন. এ পার্টি গঠিত হয় ২০০১সালে, এবং তুরস্কে শাসন ক্ষমতায় আসে ২০০২ সালের পার্লামেন্টারী নির্বাচনে. অনুষ্ঠিত পার্টি কংগ্রেস এর্দোগানের জন্য তুরস্কের নতুন রাষ্ট্রপতি নির্বাচিত হওয়ার জন্য পথ উন্মুক্ত করেছে, যা অনুষ্ঠিত হবে ২০১৪ সালে, উল্লেখ করছে বিশ্লেষকরা. কংগ্রেসে তুরস্কের প্রধানমন্ত্রী নিজের বক্তৃতায় রাজনীতির সাথে অর্থনৈতিক প্রশ্নাবলির প্রতিও মনোযোগ দেন. তিনি উল্লেখ করেন যে, আন্তর্জাতিক সঙ্কটের পরিবেশে তুরস্ক টিকে থাকতে পেরেছে এবং দেখিয়েছে যে, তুরস্ক “আস্থা ও স্থিতিশীলতার” দেশ. এর্দোগান আরও জানান যে, ২০১৩ সালের এপ্রিলে তুরস্ক আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের শেষ ঋণ শোধ করে দেবে. পররাষ্ট্র নীতির কথায় এসে তুরস্কের প্রধানমন্ত্রী সিরিয়ার সঙ্কট তাড়াতাড়ি মীমাংসার পক্ষে মত প্রকাশ করেন. তিনি রাষ্ট্রসঙ্ঘের নিরাপত্তা পরিষদের স্থায়ী সদস্য রাশিয়া ও চীনকে সিরিয়ায় বাশার আসদের শাসনের প্রতি নিজেদের স্থিতি পুনর্বিবেচনা করার আহ্বান জানান. এর্দোগান, তাছাড়া, কেলেঙ্কারী সৃষ্টি করা “মুসলমানদের নির্দোষিতা” চলচ্চিত্র দেখা দেওয়া উপলক্ষে ইস্লাম-ভীতিকে ধর্মভিত্তিক ঘৃণার অভিব্যক্তি হিসেবে অপরাধ বলে স্বীকার করার আহ্বান জানান.