“আল-কাইদার” পাণ্ডা উসামা বিন লাদেন-কে বিচার করা উচিত্ ছিল, ধ্বংস করা নয়, বলেছেন ইরানের রাষ্ট্রপতি মাহমুদ আহমাদিনেজাদ. নিউ-ইয়র্কে “সি.এন.এন” টেলি-চ্যানেলকে প্রদত্ত ইন্টারভিউতে আহমাদিনেজাদ উল্লেখ করেন যে, বিন লাদেনের বিরুদ্ধে উন্মুক্ত সরকারী মামলা দেখার সুযোগ পেলে খুশি হতেন, যে মামলা বিগত কয়েক বছরে সমস্ত ঘটনার প্রকৃত কারণ নিরূপণ করতে পারত. মার্কিনী বিশেষ বাহিনীর দ্বারা বিন লাদেন-কে ধ্বংস করা হয় ২০১১ সালের ১লা মে, পাকিস্তানের রাজধানী থেকে ৬০ কিলোমিটার দূরে অ্যাবোট্টাবাদ শহরের একটি বাড়িতে. মার্কিনীরা তাকে সন্দেহ করেছিল ২০০১ সালের ১১ই সেপ্টেম্বরের সন্ত্রাস আয়োজনের, যখন সন্ত্রাসবাদীদের দ্বারা দখলিত কয়েকটি যাত্রীবাহী বিমান ধাক্কা মারে নিউ-ইয়র্কে বিশ্ব বাণিজ্য কেন্দ্রের ভবনে এবং পেন্টাগনের ভবনে. এ সন্ত্রাসে নিহত হয়েছিল প্রায় তিন হাজার জন. বিন লাদেনের দেহ প্রচার মাধ্যমকে দেখানো হয় নি. বিশেষজ্ঞদের পরীক্ষার পরে সন্ত্রাসবাদীর দেহভষ্ম সমাধিস্থ করা হয় খোলা সমুদ্রে. সমাধিস্থ করার জায়গাও জানানো হয় নি. পেন্টাগন আগে একাধিকবার ঘোষণা করেছিল যে, বিশেষ বাহিনীর সুযোগ ছিল না “এক নম্বর সন্ত্রাসবাদীকে” জীবন্ত অবস্থায় ধরার.