রাশিয়া সবকিছুই করবে, যাতে “গাজপ্রোমের” বিরুদ্ধে ইউরো-কমিশনের অভিযোগ মীমাংসিত হয়, মঙ্গলবার বলেছেন রাশিয়ার রাষ্ট্রপতি ভ্লাদিমির পুতিন. সেই সঙ্গে মস্কো প্রাকৃতিক গ্যাসের অন্য বাজারও অনুসন্ধান করতে প্রস্তুত, বিশেষ করে এশিয়ায়, উল্লেখ করেন তিনি. ইউরো-কমিশন ৪ঠা সেপ্টেম্বর “গাজপ্রোমের” বিরুদ্ধে একচেটিয়া-বিরোধী তদন্ত শুরু করার কথা ঘোষণা করে, প্রতিদ্বন্দ্বিতার নিয়ম লঙ্ঘনের তিনটি সম্ভাব্য ক্ষেত্রে. রাশিয়ার এ হোল্ডিং কোম্পানি যদি দোষী সাব্যস্ত হয়, তাহলে তাকে বিপুল পরিমাণ আর্থিক দন্ড দিতে হবে এবং ইউরোপীয় পরিভোগীদের গ্যাস সরবরাহের সমস্ত চুক্তি পুনর্বিবেচনা করা হবে. প্রসঙ্গত, রাশিয়ার রাষ্ট্রপতি “গাজপ্রোম”-কে রক্ষা করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন. এর প্রাক্কালে তিনি এক নির্দেশনামা স্বাক্ষর করেছেন, যা অনুযায়ী স্ট্র্যাটেজিক কোম্পানি নিজের কার্যকলাপ রাষ্ট্রের সাথে সর্বসম্মত করতে বাধ্য, যদি তার বিরুদ্ধে বিদেশী কর্তৃপক্ষের অভিযোগ থাকে. কোন্ ফেডারেল শাসন সংস্থার সাথে কোম্পানি নিজের কার্যকলাপ সর্বসম্মত করবে, এক মাসের মধ্যে সরকার তা নির্ধারণ করবে. প্রসঙ্গত, “গাজপ্রোম” নিকট ভবিষ্যতে পূর্বাঞ্চলীয় গ্যাস কর্মসূচির বাস্তবায়ন দ্রুত করতে চায়, যাতে এশীয়-প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলে রপ্তানী বাড়ানো যায় এবং বিক্রির পরিমাণের দিক থেকে তা যেন ইউরোপের সাথে তুলনীয় হয়.