0চীন ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রেরউচিত্ মিলিত প্রচেষ্টায় দু দেশের সম্পর্কের সঠিক দিকে স্থিতিশীল বিকাশ সুনিশ্চিত করা. এ সম্বন্ধে বুধবার বলেছেন চীনের সভাপতি হু জিনতাও বেজিং সফররত মার্কিনী পররাষ্ট্র সচিব হিলারী ক্লিন্টনের সাথে সাক্ষাতে. হু জিনতাও জোর দিয়ে বলেন যে, চীনা-মার্কিন সম্পর্কের স্ট্র্যাটেজিক গুরুত্ব ও তার প্রভাব পৃথিবীতে বাড়ছে. এজন্য প্রয়োজন “সমনোযোগী ব্যবহার এবং তার প্রতি যত্ন নেওয়ার”. তাঁর কথায়, চীনা পক্ষ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সাথে সংলাপ ও যোগাযোগ সক্রিয় করতে, বাধা দূর করতে সচেষ্ট, যাতে এ সম্পর্ক “পূর্ণ মাত্রায় সঠিক দিকে বিকশিত হয়”. প্রসঙ্গত. এর প্রাক্কালে চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ইয়ান জেচি-র সাথে ক্লিন্টনের আলাপ-আলোচনায় দক্ষিণ চীনা সাগরে বিতর্কিত দ্বীপগুলির প্রতি দু দেশের দৃষ্টিভঙ্গীতে পার্থক্য প্রকটিত হয়. চীন এবং আসিয়ান সংস্থার একসারি দেশ এ দ্বীপগুলির দাবি করেছে. স্প্র্যাটলি দ্বীপপুঞ্জের স্বত্ত্বাধিকারের প্রশ্ন মীমাংসার জন্য আসিয়ানের দেশগুলির সাথে আলাপ-আলোচনা শুরু করার জন্য চীনের কাছে ক্লিন্টনের আহ্বানের উত্তরে ইয়ান জেচি বলেন যে, এ দ্বীপগুলির উপর চীনের সার্বভৌমত্ব সন্দেহাতীত. ইয়ান জেচি চীনের স্থিতি আবার সমর্থন করে বলেন যে, এ সমস্যা মীমাংসা করা উচিত “প্রত্যক্ষ দ্বিপাক্ষিক আলাপ-আলোচনা ও পরামর্শের মাধ্যমে”. দক্ষিণ চীনা সাগরে স্প্র্যাটলি দ্বীপপুঞ্জের ভূভাগীয় স্বত্ত্বাধিকারের দাবি করছে চীন, ভিয়েতনাম, মালয়েশিয়া, ফিলিপাইন এবং তাইওয়ান.