মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র সচিব হিলারী ক্লিন্টন এশীয়-প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চল সফরের কাঠামোতে মঙ্গলবার বেজিংয়ে পৌঁছোবেন, সরকারী আলাপ-আলোচনা শুরু হবে বুধবার. আশা করা হচ্ছে যে, সফরের সময় তিনি আলাপ-আলোচনা করবেন চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ইয়ান জেচি-র সাথে, দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক এবং বিশ্ব সমস্যাবলি আলোচনা করবেন চীনের রাষ্ট্রীয় পরিষদের সদস্য দাই বিনগো-র সাথে. তাছাড়া তিনি সাক্ষাত্ করবেন চীনের উপ-সভাপতি সি জিনপিনের সাথে এবং চীনের সভাপতি হু জিনতাওয়ের সাথে. পররাষ্ট্র বিভাগে মনে করা হচ্ছে যে, দক্ষিণ চীনা সাগরে এবং পূর্ব চীনা সাগরে দ্বীপগুলির প্রশ্ন, যার ভূভাগীয় সত্ত্বাধিকার চীন দাবি করছে আসিয়ানের একসারি দেশ এবং জাপানের কাছে, ক্লিন্টনের জন্য সবচেয়ে বেশি মুস্কিল হবে. বেজিং এ বিতর্কমূলক ভূভাগ সম্পর্কে কঠোর স্থিতি গ্রহণ করেছে, এ কথা মনে করে যে, এগুলির উপরে চীনের সার্বভৌমত্ব সন্দেহাতীত. এর প্রাক্কালে চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের প্রতিনিধি হুন লেই এ আশা প্রকাশ করেন যে, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র “এ অঞ্চলে শান্তি ও স্থিতিশীলতার উপলব্ধির উপর নির্ভর করে” দ্বীপগুলি সম্বন্ধে মোকাবিলা রহিত স্থিতি গ্রহণ করবে.