0রাশিয়া ২০২০ সাল নাগাদ এশীয়-প্রশান্ত মহাসাগরীয় দেশগুলিতে তেলের রপ্তানি মোট রপ্তানির ২২-২৫ শতাংশ পর্যন্ত বাড়াতে চায়. ভ্লাদিভস্তোকে এশীয়-প্রশান্ত মহাসাগরীয় অর্থনৈতিক সহযোগিতা সংস্থার শীর্ষ সাক্ষাতের সপ্তাহের কাঠামোতে বলেছেন রাশিয়ার এশীয়-প্রশান্ত মহাসাগরীয় অর্থনৈতিক সহযোগিতা সংস্থা অধ্যয়ন কেন্দ্রের ডেপুটি-ডিরেক্টর, রাশিয়ার জরুরী ও পূর্ণাধিকারী রাষ্ট্রদূত গ্লেব ইভাশেন্তসেভ. তিনি মনে করিয়ে দেন যে, এখন রাশিয়া এশীয়-প্রশান্ত মহাসাগরীয় দেশগুলিতে মোট তেল রপ্তানির পরিমাণের ৮-৯ শতাংশ পাঠিয়ে থাকে. তাছাড়া, রাশিয়া উক্ত বছর নাগাদ এ দেশগুলিতে গ্যাসের রপ্তানি মোট রপ্তানির ২০ শতাংশ পর্যন্ত বাড়ানোর পরিকল্পনা করছে, উল্লেখ করেন ইভাশেন্তসেভ. তাঁর কথায়, ২০২০ সাল নাগাদ শুধু উত্তর-পূর্ব এশিয়ায় – চীন, জাপান ও দক্ষিণ কোরিয়ার ভাগে পড়বে পৃথিবীর মোট জ্বালানি ব্যবহারের ৫০ শতাংশ ও তার বেশি. এ সব কিছু ঘটছে এশীয়-প্রশান্ত মহাসাগরীয় অর্থনৈতিক সহযোগিতা সংস্থার দেশগুলির অর্থনীতির “সবুজ” জ্বালানিতে উত্তরণের পটভূমিতে – গ্যাসের ব্যবহারে এবং “শান্তিপূর্ণ” পারমাণবিক শক্তির বিকাশে, এবং জ্বালানি সম্পদ ব্যবহারের বৃদ্ধিতে. ইভাশেন্তসেভ উল্লেখ করেন যে, রাশিয়া এশিয়ার জ্বালানি ও বিদ্যুত্শক্তির বিকাশে অংশগ্রহণ করতে প্রস্তুত, সেই সঙ্গে পারমাণবিক বিদ্যুত্ কেন্দ্র নির্মাণ সংক্রান্ত যৌথ প্রকল্পেও.