সিরিয়াকে বর্তমানে এজন্য মূল্য দিতে হচ্ছে যে, পশ্চিমী দেশগুলির ধামা-ধরা হয়ে চলে নি এবং নিজস্ব স্থিতি অনুসরণ করছে. এ বিবৃতি দিয়েছেন দেশের রাষ্ট্রপতি বাশার আসদ. সিরিয়ার “আদ-দুনিয়া” টেলি-চ্যানেলকে প্রদত্ত ইন্টারভিউতে তিনি বলেন যে, তাঁর দেশ পাশ্চাত্যের নির্দেশ মানতে অস্বীকার করেছে এবং ইরানের সাথে সহযোগিতা চালিয়ে যাচ্ছে. রাষ্ট্রপতি আরও উল্লেখ করেন যে, সিরিয়া ছিল একমাত্র রাষ্ট্র, যা লিবিয়ায় অনুপ্রবেশ সম্পর্কে আরব রাষ্ট্র লীগের বৈঠকে ভোট দান থেকে বিরত তো থাকেই নি, বরং তার বিরুদ্ধে ভোট দিয়েছিল. বর্তমান গৃহযুদ্ধের কথায় এসে আসদ দেশে যা ঘটছে, তার জন্য দায়িত্ব আরোপ করেন তুরস্কের উপর. তাঁর কথায়, আঙ্কারা জঙ্গীদের আশ্রয় দিচ্ছে, তার ভূভাগে কাজ করছে জঙ্গীদের অনুশীলন শিবির. সেই সঙ্গে সিরিয়ার রাষ্ট্রপতি বলেন যে, সশস্ত্র বিরোধীদের বিরুদ্ধে সংগ্রামে নির্দিষ্ট সাফল্য অর্জিত হয়েছে. আসদ উল্লেখ করেন যে, সিরিয়ায় আন্দোলন গোড়া থেকেই শান্তিপূর্ণ ছিল না. তিনি বলেন যে, বিশৃঙ্খলার প্রথম সপ্তাহেই সৈনিকরা নিহত হতে থাকে. রাষ্ট্রসঙ্ঘের পর্যবেক্ষকরাও দেশে সশস্ত্র অন্তর্ঘাতীদের ক্রিয়াকলাপের কথা স্বীকার করেছেন. তবুও, সিরিয়ায় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণাতীত হওয়ার জন্য দায়িত্ব আরোপিত হয়েছে আসদের সরকারের উপর. রাষ্ট্রনেতার স্থিরবিশ্বাস যে, বিরোধীদের পক্ষে চলে যাওয়া কিছু উচ্চপদস্থ রাজনীতিজ্ঞ তা করেছেন মঙ্গলজনক উদ্দেশ্য নিয়ে নয়. আসদ জোর দিয়ে বলেন যে, বর্তমান পর্যায়ে সিরিয়ার জনগণকে নিজেদেরই স্বতন্ত্রভাবে নির্ধারণ করতে হবে, কোন ভবিষ্যত্ তার জন্য অপেক্ষা করে আছে.