মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিরক্ষামন্ত্রী লেওন পানেট্টা স্বীকার করেছেন যে, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র সিরিয়ায় রাসায়নিক অস্ত্র ভান্ডারের নিরাপত্তা সম্পর্কে উদ্বিগ্ন. সেইজন্য মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এ সব ভান্ডারের প্রতি নজর রাখছে এবং তুরস্কের সাথে এবং জর্ডান ও ইস্রাইলের সাথে কাজ করছে, যাতে এ অস্ত্র “খারাপ লোকেদের হাতে” না পড়ে, পেন্টাগনের ব্রিফিংয়ে ব্যাখ্যা করে বলা হয়েছে. দু দিন আগে মার্কিনী রাষ্ট্রপতি বারাক ওবামা বলেন যে, রাসায়নিক অস্ত্রের পূর্ণ পরিমাণে স্থানান্তরণ অথবা ব্যবহার মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের জন্য “লাল গণ্ডি” হয়ে উঠবে. তিনি উল্লেখ করেন যে, বর্তমানে সিরিয়ায় পরিস্থিতি মীমাংসায় সামরিক দিক থেকে অংশগ্রহণের কথা উঠছে না, কিন্তু রাসায়নিক অস্ত্রের পূর্ণ পরিমাণে স্থানান্তরণ অথবা ব্যবহার এ স্ট্র্যাটেজি পুনর্বিবেচনা করতে বাধ্য করতে পারে. সিরিয়ায় সঙ্ঘর্ষ চলছে ২০১১ সালের মার্চ থেকে, এবং রাষ্ট্রসঙ্ঘের প্রতিনিধিদের তথ্য অনুযায়ী, তাতে নিহত হয়েছে প্রায় ১৭ হাজার জন.