ভারতের উত্তর পূর্ব ও উত্তর-পূর্বাঞ্চলে বিশাল বিদ্যুত বিভ্রাটের পরে ভারতের ও বিদেশের সংবাদ মাধ্যমগুলিতে উত্তপ্ত আলোচনা চলছে. এমনকি ব্ল্যাক-আউট নয়, এই বিপর্যয় বহু চিন্তাধারাগত প্রশ্নের উদ্রেক করেছে.

ভারত শুধুমাত্র পৃথিবীতে অন্যতম প্রধান বিদ্যুতশক্তি ব্যবহারকারী নয়, বিদ্যুত উত্পাদনের ক্ষেত্রেও প্রথম সারিতে যেতে উদগ্রীব. কিন্তু মাথাপিছু বিদ্যুত সরবরাহের হার যদি দেখা যায়, তাহলে ভারতের অবস্থা করুন, এমনকি চীন, যার জনসংখ্যা ভারতের থেকেও বেশি, সেখানে মাথাপিছু তিনগুন বেশি বিদ্যুত সরবরাহ করা হয়. একই সাথে ভারতে কুদানকুলামে প্রয় ১ বছর ধরে তিরি হয়ে যাওয়া পারমানবিক বিদ্যুতকেন্দ্র অচল হয়ে রয়েছে, বলছেন বরিস ভলখোনস্কি.

পঋথিবীতে সবচেয়ে বেশিসংখ্যক মধ্যবিত্ত ভারতে বাস করলেও, কোটি কোটি মানুষ দিন যাপন করে ৫০ টাকারও কমে. অভাবনীয় প্রযুক্তিগত অগ্রগতির প্রেক্ষাপটে এখনো দৈন্যদশায় রয়েছে.

এই সব বৈপরীত্যের উদ্ভব আজ হয়নি ও আগানী ২-৩ দশকে এর সমাধান করা যাবে না. কিন্তু বিদ্যুত বিভ্রাট আজকের দিনের আরও বড় সমস্যা উন্মোচন করেছে – দেশের সরকারের অক্ষমতা ও অনিচ্ছা সমস্যাবলীর সমাধান করার.