পাকিস্তানে কিছু আমলাকে ধরা হয়েছে, যারা ৭ হাজার পাউন্ড স্টার্লিংয়ের বদলে জাতীয় দলের সদস্য হিসেবে ইচ্ছুক সকলকে লন্ডন অলিম্পিকে যাওয়ার প্রস্তাব করেছিল. অপরাধীদের ধরা সম্ভব হয়েছিল বৃটেনের “সান” পত্রিকার সাংবাদিকদের কল্যাণে. বৃটিশ প্রচার মাধ্যম মঙ্গলবার জানিয়েছে যে, পত্রিকার কর্মী লাহোর শহরে “ড্রিম ল্যান্ড” নামে পর্যটন এজেন্সির সূত্র ধরে এগিয়ে যায়. এই ফার্মই লন্ডন অলিম্পিকে যাওয়া পাকিস্তানের জাতীয় দলের সদস্য কার্ড এবং পাসপোর্ট বিক্রি করছিল. ড্রিম ল্যান্ড পর্যটন এজেন্সির বিরুদ্ধে আগেও ফৌজদারী মামলা হয়েছিল বেআইনী মানুষ কেনা-বেচার জন্য. সাংবাদিকদের তদন্তের তথ্য পরিচয়ের জন্য পাকিস্তানের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে পেশ করা হয়েছে. এবং তাছাড়া পেশ করা হয়েছে পাকিস্তানের স্পেশল সার্ভিস – ঐক্যবদ্ধ গোয়েন্দা বিভাগে.