রাশিয়ার পক্ষ আগে থেকে ভারতকে সতর্ক করে দিয়েছে যে, চাঁদের দিকে “চান্দ্র্যযান-২” মহাকাশ সরঞ্জামের ক্ষেপণ এক বছর – ২০১৪ সাল পর্যন্ত স্থগিত রাখা হবে, ভারতীয় শরিকরা এতে সম্মত হয়েছে, সাংবাদিকদের এ সম্বন্ধে জানিয়েছেন “রসকসমস” সংস্থার প্রধান ভ্লাদিমির পপোভকিন. ভারতের “ডেইলি নিউজ অ্যান্ড অ্যানালিসিস” (ডি.এন.এ) পত্রিকা আগে জানিয়েছিল যে, “চান্দ্র্যযান-২-এর” ক্ষেপণ এক বছরের জন্য – ২০১৪ সাল পর্যন্ত স্থগিত রাখা হয়েছে রাশিয়ার জন্য, যে এ মিশনে অংশগ্রহণ করছে এবং এ কর্মসূচিতে তার অংশের বাস্তবায়নে দেরি হচ্ছে. পত্রিকাটি উল্লেখ করেছে যে, রাশিয়ার পক্ষ নিজস্ব মহাকাশ প্রকল্পের প্রতি মনোযোগ নিবদ্ধ করতে চায়, এবং এর দ্বারাই এ দেরি ব্যাখ্যা করা যায়. পপোভকিন বলেন, “এ কথা সত্যি. ২০১১ সালের নভেম্বরে রাশিয়ার আন্তর্গ্রহ “ফোবোস-গ্রুন্ত” স্টেশনের বিফল ক্ষেপণের পরে আমরা সিদ্ধান্ত নিতে বাধ্য হই. ভাল হয়, যদি চান্দ্র্যযান-২-এর ক্ষেপণ ছয় মাস অথবা এক বছর স্থগিত রাখা হয়, যাতে বেশি নির্ভরযোগ্যতার সাথে তা তার মিশন পালন করতে পারে”. আগে পরিকল্পনা ছিল যে চান্দ্র্যযান-২ পৃথিবীর উপগ্রহের দিকে রওনা হবে ২০১৩ সালে. ভারতের চান্দ্র্য মিশনে অংশগ্রহণ করছে রাশিয়ার মহাকাশ এজেন্সি- রাশিয়ার পক্ষের কর্তব্য হল অবতরণ মোডুল তৈরি করা, যা চাঁদের পৃষ্ঠভাগে ছোট একটি স্বয়ংক্রিয় লুনাখোদ নামাবে. এই “চান্দ্র্যযান-২” প্রকল্প হল ভারতের চান্দ্র্য কর্মসূচির ক্রমানুবর্তন, যার শুরু করেছিল “চান্দ্র্যযান-১”, যা চাঁদের দিকে ক্ষেপণ করা হয়েছিল ২০০৮ সালের অক্টোবরে. এ সরঞ্জামটি চাঁদের কক্ষপথে কাজ করেছিল ৩১২ দিন.