চীন মনে করে যে, বর্তমানে সিরিয়ায় সবচেয়ে জরুরী বিষয় হল হিংসা বন্ধ করা এবং পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণাতীত হয়ে উঠতে না দেওয়া. এ সম্বন্ধে বলেছেন চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ইয়ান জেচি রবিবার রাষ্ট্রসঙ্ঘের সাধারণ সম্পাদক বান কি মুনের সাথে টেলিফোন আলাপে. ইয়ান জেচি জোর দিয়ে বলেন যে, বিশ্ব জনসমাজের সমর্থন করে যাওয়া উচিত কোফি আননের প্রচেষ্টা, তাঁর ছয়টি প্রস্তাব, এবং রাষ্ট্রসঙ্ঘের নিরাপত্তা পরিষদের তত্সংক্রান্ত সিদ্ধান্তের পালন. আগে চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের প্রতিনিধি বলেন যে, বেজিংয়ে গুরুত্বের সাথে অধ্যয়ন করা হচ্ছে পাশ্চাত্য ও রাশিয়ার দ্বারা প্রস্তুত করা সিরিয়ার সম্পর্কে রাষ্ট্রসঙ্ঘের খসড়া সিদ্ধান্তগুলি. উভয় খসড়া পেশ করা হয়েছে এ উপলক্ষে যে ২০শে জুলাই সিরিয়ায় রাষ্ট্রসঙ্ঘের পর্যবেক্ষক মিশনের তিন মাসেরম্যান্ডেটের মেয়াদ শেষ হচ্ছে. পাশ্চাত্যের খসড়ায় কঠোর অর্থনৈতিক নিষেধাজ্ঞা প্রবর্তনের কথা, যদি দশ দিনের মধ্যে কোফি আননের পরিকল্পনার দাবি পুরণ করা না হয়. মস্কো ইতিমধ্যে ঘোষণা করেছে যে, রাষ্ট্রসঙ্ঘের নিরাপত্তা পরিষদে এ খসড়া সিদ্ধান্ত অনুমোদন হতে দেবে না.