“ভারতকে নতুন করে আবিস্কার করো” – সিনেমা, সঙ্গীত, থিয়েটার, ফোটোগ্রাফি, ফ্যাশন, সাহিত্য ও বিজ্ঞানের বিষয়ে. নিজেদের সামনে এই কর্তব্য রেখেছেন ‘ওপেন ইন্ডিয়া’ নামক প্রথম রাশিয়ায় আয়োজিত আধুনিক ভারতীয় সিনেমা ও সংস্কৃতি উত্সবের সংগঠকেরা. এর উদ্যোক্তা সেন্ট-পিটার্সবার্গের ‘বেরেগ’ নামক আন্তর্জাতিক শিল্প কেন্দ্র. জেনারেল ডিরেক্টর ল্যুদমিলা লিপেইকো বলছেন – “সম্প্রতি শুরু হওয়া উত্সব সাফল্যের সাথে চলছে, যা রাশিয়া ও ভারতের মধ্যে কূটনৈতিক সম্পর্ক স্থাপণের ৬৫ বছর পূর্তির প্রতি উত্সর্গীকৃত. জুন মাসের শেষে আমরা উত্সবের নতুন পর্যায়ে যাব, সেটা আয়োজিত হবে সেন্ট-পিটার্সবার্গে”.

 

“উত্সবে যোগ দিয়েছে সেন্ট-পিটার্সবার্গের রাষ্ট্রীয় বিশ্ববিদ্যালয়” – বলছেন ল্যুদমিলা লিপেইকো. – “এখানে রুশী ভারততত্ত্ববিদদের সম্মেলনের আয়োজন করা হবে. ঐ সম্মেলনে ভারতের প্রখ্যাত সব রাজনীতিবিদ, দার্শনিকদের আমন্ত্রণ করা হয়েছে. প্রধান অতিথি সেখানে হবেন জিড্ডু কৃষ্ণমূর্তির নামাঙ্কিত তহবিলের প্রধান রাজেশ দালাল. কৃষ্ণমূর্তির নাম, তার গ্রন্থাবলী রাশিয়াতে আজকের দিনে অন্যতম জনপ্রিয় আধুনিক দার্শনিক হিসাবে. কৃষ্ণমূর্তির চিন্তাভাবনা, সমন্বয় – যা ভারতীয় ও অন্যান্য প্রাচ্য দর্শনভিত্তিক, তা ভবিষ্যতের প্রতি উত্সর্গীকৃত ও আধুনিক পড়ুয়াদের জন্য আগ্রহদ্দীপক. উপরোক্ত সম্মেলনে সেমিনার ও গোল টেবিল বৈঠকেরও আয়োজন করা হবে. সেখানে ফোটো প্রদর্শনী হবে, হবে ভারতের প্রতি উত্সর্গীকৃত সেন্ট-পিটার্সবার্গের প্রকাশকদের বইয়ের প্রদর্শনী”.

আজকের সেন্ট-পিটার্সবার্গকে ভারতবর্ষের সাথে অনেকভাবে সংযুক্ত করে. সেখানকার বিশ্ববিদ্যালয়ে বিভিন্ন ভারতীয় ভাষা শিক্ষা দেওয়া হয়. অন্যান্য উচ্চ শিক্ষালয়ে ভারতীয় শিক্ষার্থীরা মেডিক্যাল, ইনজিনিয়ারিংয়ের শিক্ষা পায়. ঐ শহরে নিয়মিত আসে ভারতের মার্গ সঙ্গীতজ্ঞরা. পিটারের যুব সম্প্রদায় সাদরে বলিউডের ফিল্ম দ্যাখে. ভারত ঐতিহ্যগতভাবে প্রত্যেক বছর সেন্ট-পিটার্সবার্গে বার্ষিক অর্থনৈতিক ফোরামে অংশ নেয়. ঐ ফোরামে বড় বড় বাণিজ্যিক চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়. ল্যুদমিলা লিপেইকো বলছেন, যে এ বছরে রাশিয়ার জন্য সবচেয়ে গুরূত্বপূর্ণ ঐ ফোরাম আয়োজিত হবে সেন্ট-পিটার্সবার্গে ২১-২৩শে জুন. ভারতের শিল্পপতিদের প্রতিনিধিদলের আগমন প্রত্যাশা করা হচ্ছে. “ফোরামের পরেই ২৮-২৯শে জুন আমাদের শহরে ‘ওপেন ইন্ডিয়া’ উত্সব হবে – বলছেন লিপেইকো. এর প্রতি আগ্রহ প্রকাশ করছে সেন্ট-পিটার্সবার্গের কাছাকাছি অবস্থিত উত্তরাঞ্চলের অনেক শহর. ইতিমধ্যেই আমরা উত্সব চালিয়ে যাওয়ার জন্য আরখানগেলস্ক, পেত্রোজাভোদস্ক থেকে আবেদনপত্র পেয়েছি”.

ল্যুদমিলা লিপেইকো বলে চলেছেন – যে “ভারতের সাথে বোঝাপড়া হয়েছে, যে অগাস্ট মাসে ভারতীয় শিল্পীরা সেন্ট-পিটার্সবার্গে আসবে. সেইসময়ে দেখানো হবে সবচেয়ে জনপ্রিয় কিছু চলচ্চিত্র, বলিউডের অভিনেতারাও আসবে. ভারতীয় খাদ্যরও উত্সব হবে, যেখানে নয়াদিল্লী, মুম্বাই, কোলকাতার পাচকরা মাষ্টার-ক্লাস দেবে. যুব সম্প্রদায়ের জন্য আয়োজন করা হবে ডিস্কো থেকের, ভারতীয় সাহিত্য সম্পর্কে জ্ঞানীগুনীদের জন্য আয়োজিত হবে ক্যুইজ”.

কিছু পরে, সেপ্টেম্বর মাসে সেন্ট-পিটার্সবার্গের উত্সব সংগঠকেরা রিলে রেসের ব্যাটন হাতে দেবে উরাল ও সাইবেরিয়ার শহরগুলিতেঃ একাতেরিনবার্গ, ওমস্ক ও নোভোসিবিরস্কে উত্সব চলতে থাকবে.