মার্কিনী পররাষ্ট্র সচিব হিলারী ক্লিন্টন রাশিয়াকে সতর্ক করে দিয়েছেন যে, সিরিয়ার রাষ্ট্রপতি বাশার আসদের শাসন ব্যবস্থার প্রতি সমর্থন মস্কোর জন্য নেতিবাচক পরিণতি নিয়ে আসতে পারে. ওয়াশিংটনে এক সাংবাদিক সম্মেলনে তিনি বলেন যে, সিরিয়ায় পরিস্থিতি গৃহযুদ্ধের দিকে গড়িয়ে যাচ্ছে. ক্লিন্টন রাশিয়া এবং রাষ্ট্রসঙ্ঘের নিরাপত্তা পরিষদের সমস্ত সদস্যকে আহ্বান জানিয়েছেন সিরিয়ার রাষ্ট্রপতি আসদ-কে হিংসা বন্ধ করা এবং সিরিয়া সম্পর্কে রাষ্ট্রসঙ্ঘ ও আরব রাষ্ট্র লীগের বিশেষ প্রতিনিধি কোফি আননের পরিকল্পনা পালন করার আহ্বান জানাতে. তিনি আরও বলেন যে, রাশিয়াকে এ অঞ্চলে নিজের স্বার্থের ঝুঁকি নিতে হবে, যদি সিরিয়ায় পরিস্থিতি সম্পর্কে “আরও গঠনমূলক পথ” গ্রহণ না করে. তিনি আবার রাশিয়াকে আহ্বান জানিয়েছেন সিরিয়ায় অস্ত্র সরবরাহ বন্ধ করতে. এর প্রাক্কালে মার্কিনী পররাষ্ট্র সচিব হিলারী ক্লিন্টন বলেন যে, তিনি রাশিয়াকে সন্দেহ করছেন সিরিয়াকে সামরিক হেলিকপ্টার সরবরাহের, যা সিরিয়ার কর্তৃপক্ষ শান্তিপূর্ণ নাগরিকদের আক্রমণের জন্য ব্যবহার করতে পারে. রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই লাভরোভ বুধবার ক্লিন্টনের বিবৃতি খন্ডন করেছেন. তেহেরানে সাংবাদিক সম্মেলনে তিনি বলেন যে, সিরিয়ার সাথে বহুকাল আগে স্বাক্ষরিত এবং অর্থ জমা দেওয়া চুক্তির পালন শেষ করছে, আর এ সমস্ত চুক্তি নিছক আকাশ প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা সংক্রান্ত. তিনি বলেন যে, রাশিয়া সিরিয়াকে, অথবা অন্য কোনো দেশকে এমন কিছু বিক্রি করছে না, যা শান্তিপূর্ণ মিছিলকারীদের বিরুদ্ধে সংগ্রামে ব্যবহৃত হতে পারে. লাভরোভ যোগ করে বলেন যে, রাশিয়ার চেয়ে পার্থক্যে, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এ অঞ্চলে এবং অন্যান্য দেশে বিশেষ সব সরঞ্জাম সরবরাহ করছে এবং তা “কেন যেন সাধারণ ব্যাপার বলে বিবেচনা করা হচ্ছে”. ক্লিন্টন বলেন যে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র সিরিয়ার বিরোধীপক্ষকে কোনো সামরিক সরঞ্জাম সরবরাহ করছে না. তাঁর কথায়, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র সিরিয়ার জনগণকে ৫.২ কোটি ডলারের মানবতাবাদী সাহায্য পাঠিয়েছে.