সিরিয়ায় কর্তৃপক্ষ ও সশস্ত্র বিরোধীপক্ষের মাঝে সশস্ত্র বিরোধ গোলান মালভূমির পরিস্থিতি প্রভাবিত করছে, যেখানে ইস্রাইলী ও সিরিয়ার বাহিনীর মাঝে যুদ্ধবিরতি বজায় রয়েছে. এ সম্বন্ধে বলা হয়েছে প্রাক্কালে প্রকাশিত রাষ্ট্রসঙ্ঘের সাধারণ সম্পাদক বান কি মুনের রিপোর্টে. বান কি মুন মনে করেন যে, সিরিয়ার ঘটনাবলি প্যালেস্টাইন-ইস্রাইলী শান্তিপূর্ণ মীমাংসার গতিও জটিল করে তুলছে. বান কি মুনের রিপোর্টে বিগত ছয় মাসের ঘটনাবলির কথা বলা হয়েছে এবং তা গোলান মালভূমিতে পরিস্থিতির প্রতি লক্ষ্য রাখার রাষ্ট্রসঙ্ঘের বাহিনীর কার্যকলাপের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য, যা গঠিত হয়েছিল ১৯৭৪ সালের মে মাসে. বান কি মুন উদ্বেগ প্রকাশ করেন এ বিষয়ে যে, এ অঞ্চলে পর্যবেক্ষক গ্রুপের গতিবিধির সীমাবদ্ধতা বলবত্ রয়েছে ইস্রাইল এবং সিরিয়া উভয় পক্ষ থেকেই. তিনি জোর দিয়ে বলেন যে, নিকট প্রাচ্যে উত্তেজনাপূর্ণ পরিস্থিতি বজায় রয়েছে. তবুও, বান কি মুন সঙ্কটের শান্তিপূর্ণ মীমাংসার আশা করেন. এ উপলক্ষে তিনি গোলান মালভূমিতে রাষ্ট্রসঙ্ঘের পর্যবেক্ষক মিশনের উপস্থিতি বজায় রাখার প্রয়োজনীয়তার কথা বলেছেন. রাষ্ট্রসঙ্ঘের এ পর্যবেক্ষক মিশনে রয়েছে অস্ট্রিয়া, ফিলিপাইন, ভারত, ক্রোয়েশিয়া, জাপান এবং কানাডার ১০৩৫ জন সামরিক কর্মী. ইস্রাইল গোলান মালভূমি দখল করেছিল ১৯৬৭ সালে.