নিউইয়র্কে রাষ্ট্রসঙ্ঘের নিরাপত্তা পরিষদে সিরিয়ার পরিস্থিতি নিয়ে রুদ্ধদ্বার বৈঠক হয়েছে. রাশিয়ার কূটনীতিবিদরা প্রস্তাব করেছেন সিরিয়া নিয়ে যত দ্রুত সম্ভব আন্তর্জাতিক সম্মেলন করার. কোফি আন্নান তাঁর বক্তৃতায় বলেছেন: এই অন্তর্বর্তী কালীণ সময়ে সঙ্কটের নিরসনে মনোযোগ দেওয়া দরকার. এর জন্য প্রয়োজন সমস্ত ঘটনা সম্বন্ধে ঐক্যবদ্ধ ভাবে মতামত তৈরী করা, আন্তর্জাতিক সমাজের ঐক্যবদ্ধ হওয়া. আমি বিশ্বাস করি যে, সিরিয়া এই বিরোধের নিরসন করতেই পারে. আন্তর্জাতিক সমাজ একটি মত নিয়েই কাজ করবে ও এই পরিস্থিতির সমাধান করবে.

রাষ্ট্রসঙ্ঘের সাধারন সভায় সিরিয়া প্রশ্ন নিয়ে আলোচনার সময়ে বহু রকমের পথের প্রস্তাব করা হয়েছে সিরিয়াতে রক্তক্ষয় বন্ধ করার জন্য, তার মধ্যে কিছু চরম পথও ছিল. যেমন, আরব দেশ গুলির লীগের সাধারন সম্পাদক আহ্বান করেছেন রাষ্ট্রসঙ্ঘের সনদ পত্রের সপ্তম অধ্যায়ের ব্যবহার করে সামরিক হস্তক্ষেপ করার. রাশিয়া এই রাজনীতির সাফল্য সম্বন্ধে সন্দেহ প্রকাশ করেছে.

রাষ্ট্রসঙ্ঘের নিরাপত্তা পরিষদের রুদ্ধদ্বার বৈঠকের পরে সাংবাদিক সম্মেলনে রাশিয়ার পক্ষ থেকে রাষ্ট্রসঙ্ঘে স্থায়ী প্রতিনিধি ভিতালি চুরকিন বলেছেন: আমরা নতুন উদ্যোগ নিয়ে আহ্বান করেছি যত দ্রুত সম্ভব সিরিয়া নিয়ে আন্তর্জাতিক সম্মেলনের আয়োজন করার. এই প্রস্তাব কোফি আন্নানের প্রস্তাবের যোগাযোগ দল তৈরী করার প্রস্তাবের প্রতিধ্বনীর মতই. কিন্তু এই ধরনের দলের কাজকর্ম কিছু একটা দিয়ে শুরু হওয়া দরকার. আর এটা হতে পারে সেই সমস্ত দেশের অংশগ্রহণে এক সম্মেলন, যারা সিরিয়ার পরিস্থিতির উপরে কোন প্রভাব ফেলতে পারে, যাদের শুধু সেই দেশের প্রশাসনের উপরেই নয়, বরং বিভিন্ন বিরোধী পক্ষের উপরেও প্রভাব রয়েছে. রাষ্ট্রসঙ্ঘের নিরাপত্তা পরিষদের কাজকর্মের সঙ্গে এই বিশেষ ভাবে আয়োজিত সম্মেলনের কোন বিরোধ থাকা উচিত্ নয় ও তা কোন ভাবেই নিরাপত্তা পরিষদের বদলে নয়. আজ মস্কোতে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বিশেষ সিরিয়া সংক্রান্ত প্রতিনিধির সঙ্গে আলোচনা হওয়ার কথা রয়েছে. গত বছরের মার্চ মাস থেকে শুরু হওয়া গণ অভ্যুত্থানের ফলে সিরিয়াতে প্রায় ১২ হাজার মানুষ নিহত হয়েছেন বলে রাষ্ট্রসঙ্ঘের তথ্য দপ্তর জানিয়েছে.