রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই লাভরোভের স্থিরবিশ্বাস যে, রাষ্ট্রসঙ্ঘের নিরাপত্তা পরিষদ সিরিয়ায় বিদেশী সামরিক অনুপ্রবেশের ম্যান্ডেট দেবে না. এ সম্বন্ধে তিনি বলেছেন আস্তানায়, বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় সাংবাদিক সম্মেলনে. পশ্চিমী দেশগুলি রাষ্ট্রসঙ্ঘের নিরাপত্তা পরিষদে সিরিয়ায় সরকারের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণের চেষ্টা করছে. সেখানে গত বছরের মার্চ থেকে কর্তৃপক্ষ ও বিরোধীদের মাঝে মোকাবিলায় প্রায় ১২ হাজার জন নিহত হয়েছে. তবে রাষ্ট্রসঙ্ঘের নিরাপত্তা পরিষদ এখনও একমতে আসতে পারে নি, কারণ রাশিয়া ও চীন এমন ব্যবস্থার বিরুদ্ধে মত প্রকাশ করছে, যা সিরিয়ায় বিদেশী সামরিক হস্তক্ষেপ এবং “লিবিয়ার চিত্রনাট্যের” পুনরাবৃত্তি ঘটাবে. বৃহস্পতিবার রাষ্ট্রসঙ্ঘের নিরাপত্তা পরিষদে সিরিয়ার পরিস্থিতি আলোচনার সময়, যে পরিস্থিতি জটিল হয়ে উঠেছে হামা অঞ্চলে শান্তিপূর্ণ অধিবাসীদের মাঝে নতুন হত্যাকা্ন্ড চালানোর ফলে, আবার ধ্বনিত হয়েছে রাষ্ট্রসঙ্ঘের স্থিতি আরও কঠোর করার আহ্বান এবং রাষ্ট্রসঙ্ঘ ও আরব রাষ্ট্র লীগের বিশেষ প্রতিনিধি কোফি আননের দ্বারা প্রস্তাবিত মীমাংসার পরিকল্পনা ছাড়া নতুন নতুন ব্যবস্থা গ্রহণের. রাষ্ট্রসঙ্ঘে রাশিয়ার স্থায়ী প্রতিনিধি ভিতালি চুরকিন জানান যে, রাশিয়া সিরিয়ার পরিস্থিতি মীমাংসার জন্য নিকট ভবিষ্যতে আন্তর্জাতিক সম্মেলন আয়োজনের প্রস্তাব করেছে.