0চীন মনে করে যে, এশীয়-প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলে মার্কিনী সামরিক উপস্থিতি বৃদ্ধি উপলক্ষে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের তার উদ্বেগের প্রতি মনোযোগ দেওয়া উচিত. এ সম্বন্ধে সোমবার বেজিংয়ে এক ব্রিফিংয়ে বলেছেন চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের প্রতিনিধি লিউ ভেইমিন. এশীয়-প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সামরিক উপস্থিতি বৃদ্ধি সম্পর্কে পেন্টাগনের প্রধান লেওন পানেট্টার সাম্প্রতিক বিবৃতি সম্পর্কে মন্তব্য করে লিউ ভেইমিন বলেন যে, এ অঞ্চলের সমস্ত পক্ষের শান্তি, স্থিতিশীলতা ও বিকাশ বজায় রাখার জন্য সচেষ্ট হওয়া উচিত্. তিনি জোর দিয়ে বলেন যে, এশীয়-প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চল হল এমন এলাকা যেখানে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও চীন উভয়েরই স্বার্থ রয়েছে, আর বেজিং চায় ওয়াশিংটন যাতে সেখানে গঠনমূলক ভূমিকা পালন করে. এর প্রাক্কালে সিঙ্গাপুর সফরের সময় পানেট্টা বলেন যে, ২০২০ সাল নাগাদ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র প্রশান্ত মহাসাগরের অঞ্চলে নিজের নৌবাহিনীর ৬০ শতাংশ পর্যন্ত যুদ্ধ-জাহাজ সমাবেশ করবে. সেই সঙ্গে সেখানে থাকবে বিমানবাহী আঘাত হানার গ্রুপের বড় একটা অংশ. তিনি জোর দিয়ে বলেন যে, এ হল এশিয়ায় মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সামরিক উপস্থিতি প্রসার সম্পর্কিত নতুন স্ট্র্যাটেজির এক অংশ.