0শাংহাই সহযোগিতা সংস্থার সদস্য দেশগুলি ৭ই জুন বেজিংয়ের শীর্ষ সাক্ষাতে আফগানিস্তান ও তুরস্ককে “পর্যবেক্ষক” এবং “সংলাপের শরিক” স্থিতি দিতে পারে. এ সম্বন্ধে “রসিইস্কায়া গাজেতা” পত্রিকাকে প্রদত্ত ইন্টারভিউতে বলেছেন শাংহাই সহযোগিতা সংস্থার প্রধান সচিব মুরাতবেক ইমানালিয়েভ. সংস্থায় নতুন সদস্য গ্রহণের কথায় এসে তিনি ব্যাখ্যা করে বলেন যে, বর্তমানে এর জন্য প্রয়োজনীয় বিধানিক ভিত্তি নেই, তবে সংস্থার সদস্য দেশগুলির বিশেষজ্ঞরা সক্রিয়ভাবে এ নিয়ে কাজ করছেন. ইমানালিয়েভ আরও বলেন যে, শীর্ষ সাক্ষাতে অংশগ্রহণকারীরা একসারি দলিল স্বাক্ষরের পরিকল্পনা করছেন, সেই সঙ্গে “মধ্য-মেয়াদী পরিপ্রেক্ষিতে শাংহাই সহযোগিতা সংস্থার বিকাশের স্ট্র্যাটেজির প্রধান প্রধান ধারা” নামে দলিলও. তাঁর কথায়, সংস্থার সদস্য দেশগুলির নেতারা দীর্ঘমেয়াদী ও যৌথ প্রস্ফুরণের অঞ্চল গঠন সম্পর্কে রাষ্ট্রপ্রধানদের ঘোষণাপত্র গ্রহণেরও পরিকল্পনা করছেন. শাংহাই সহযোগিতা সংস্থায় অন্তর্ভুক্ত আছে চীন, রাশিয়া, কাজাখস্তান, তাজিকিস্তান, কির্গিজিয়া ও উজবেকিস্তান. ভারত, মঙ্গোলিয়া ও পাকিস্তান এ সংস্থায় পর্যবেক্ষকের স্থিতিতে রয়েছে. ২০১১ সালে এ সংস্থায় যোগ দেওয়ার জন্য আবেদন করে ইরান ও আফগানিস্তান. সংলাপের শরিক স্থিতিতে রয়েছে বেলোরুশিয়া এবং শ্রীলঙ্কা.