রাশিয়ার মন্ত্রীসভায় নতুন তামাক বিরোধী আইন নেওয়া হচ্ছে. এই দলিল খুবই কঠোর ভাবে সামাজিক জায়গায় ধূম পানের সুযোগ কমিয়ে দেবে, আর তারই সঙ্গে সিগারেটের দাম ইউরোপের স্তরে তুলে দেবে. আশা করা হচ্ছে যে, সমস্ত ব্যবস্থা বাস্তবায়ন করা হলে ধূমপায়ীদের সংখ্যা শতকরা ৪০- ৫০ ভাগ কমবে ও রাশিয়াতে বছরে দেড় থেকে দুই লক্ষ লোকের মৃত্যুও কম হবে.

 চিকিত্সকরা মন্তব্য করেছেন: রাশিয়ার লোকরা খুবই বেশী রকমের তামাক সেবন করে থাকেন. সাধারণতঃ পুরুষ মানুষরা দিনে ১৮টি ও মহিলারা দিনে ১৩টি সিগারেট খেয়ে থাকেন. রাশিয়াতে সব মিলিয়ে ধূমপান করেন প্রায় ৪ কোটি লোক – জনসংখ্যার প্রায় শতকরা ৪০ শতাংশ. প্রতি বছরে প্রায় চার লক্ষ লোক মারা যান ধূমপান থেকে উত্পন্ন ব্যাধির কবলে পড়ে মারা যান. এই প্রসঙ্গে শতকরা ৮০ ভাগ রুশ লোকই প্রতি দিনই অনিচ্ছা স্বত্ত্বেও ধূমপান করতে বাধ্য হন – রেস্তোরাঁ, বার, কাজের জায়গা ও অন্যান্য সামাজিক জায়গায়.

 এই ধরনের পরিস্থিতি দেশের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে মূল্যায়ন করা হয়েছে দেশের জনগনের স্বাস্থ্যের জন্য বিপজ্জনক বলে ও ঠিক করা হয়েছে তামাক বিরোধী আইন আরও কঠোর করার জন্য.সুতরাং নতুন আইনের প্রকল্প প্রস্তাব করেছে কাজের জায়গায় ধূমপান নিষিদ্ধ করার. প্রশাসনিক ভবন ও অফিস, হাসপাতাল ও স্কুল, থিয়েটার ও ষ্টেডিয়াম থেকে তামাক সেবনের জন্য আলাদা ঘর তুলে দেওয়া হবে. ধূমপান নিষিদ্ধ হবে সমস্ত যাত্রী বাহী পরিবহন ব্যবস্থা, তার মধ্যে দূর পাল্লার ট্রেনও থাকবে. প্রসঙ্গতঃ ধূম পান নিষিদ্ধ করা হবে বিমানবন্দর, রেলওয়ে স্টেশন ও বাস স্টপের আগেই. ক্যাফে, রেস্তোরাঁ, হোটেল কোন জায়গাতেই রুশ লোকরা ধূমপান করতে পারবেন না. এমনকি নিজেদের বাড়ীর সিঁড়িতেও নয়.

 প্রসঙ্গতঃ, রাশিয়ার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে উল্লেখ করা হয়েছে কোন জায়গার মালিক নিজের ইচ্ছা মতো অবশ্য আলাদা করে খোলা জায়গায় ধূম পানের জন্য আলাদা ব্যবস্থা করতে পারবেন. বিশ্বের অভিজ্ঞতা এর মধ্যেই প্রমাণ করেছে যে, এই ধরনের বাধা যথেষ্ট সফল, এই কথা উল্লেখ করে “সুস্থ দেশ” তহবিলের সভাপতি ভিতালি বগদানচিকভ বলেছেন:

 “আমি মনে করি যে, এই ধরনের আইন অনেক বেশী সংখ্যক লোকের উপকারেই লাগবে. কারও জন্যই গোপনীয় সত্য নয় যে, অনিচ্ছাকৃত ভাবে তামাকের ধোঁয়া সেবন, যে ব্যক্তি নিজে ধূমপান করছেন, তাঁর থেকে বাকী লোকদেরই বেশী ক্ষতি করে থাকে. অন্যান্য দেশে যেখানে এই ধরনের আইন নেওয়া হয়েছে ও সামাজিক জায়গা গুলিতে ধূমপান বন্ধ করা হয়েছে, সেখানে এটা খুবই ভাল ভাবে কাজ করছে. আমরা এটা খুব ভাল ভাবেই দেখতে পাচ্ছি, যখন কোনও ইউরোপ বা আমেরিকার দেশে যাই, যেখানে রেস্তোরাঁ, ক্যাপে, বাস স্টপ, ষ্টেডিয়ামে কোথাও ধূমপান করা সম্ভব নয়. আর এটা সত্যি কাজ করে. কিছু লোকের জন্য, যারা সবে মাত্র সিগারেট ধরেছে, এই ধরনের বাধা, খুব তাড়াতাড়ি নিকোটিনের উপরে নির্ভরতা খুব ভাল করে শুরু না হওয়ার কারণে, তাদের সিগারেট খাওয়া ছেড়ে দিতে বাধ্য করে ও তারা সুস্থ লোকদের সারিতে সামিল হয়”.

 নতুন আইনে প্রকল্প ধারণা করেছে যে, সিগারেটের দামও বাড়বে. এই কাজ করা হচ্ছে যাতে, তামাক শিশু ও কিশোরদের জন্য কম সহজলভ্য হয়. কারণ গবেষণা অনুযায়ী বেশীর ভাগ ধূমপায়ী ১৮ বছরের কম বয়স থেকেই এই নেশায় আক্রান্ত হয়েছে. সিগারেটের প্যাকেটের বাইরের চেহারাও পাল্টাবে. তাতে ভয় পাইয়ে দেওয়ার মতো লেখা ছাড়াও, ছবি থাকবে নানা ধরনের তামাকের কারণে হওয়া কঠিন রোগের, যেমন ক্যান্সার, গ্যাংগ্রিন, বন্ধ্যাত্ব ইত্যাদি.

 ছোট দোকান ও কিয়স্ক থেকে সিগারেট উধাও হয়ে যাবে, বিক্রী করা যাবে শুধু বড় দোকান থেকেই, আর সেখানেও কোন রকমের শো কেসে বা তাকের উপরে সাজিয়ে রাখা যাবে না. ক্রেতা শুধু দামের তালিকা থেকে নাম পড়েই কিনতে পারবেন.

 বেশীর ভাগ রুশ লোকই এই ধরনের তামাক বিরোধী ব্যবস্থাকে সমর্থন করেছে. সারা রাশিয়া সামাজিক মতামত পরিসংখ্যান কেন্দ্রের তথ্য অনুযায়ী সামাজিক জায়গায় ধূম পান নিষিদ্ধ করার জন্য শতকরা ৮০ ভাগেরও বেশী রুশ লোক সমর্থন জানিয়েছেন, আর শতকরা ৭০ ভাগ রুশ নাগরিক শুধু নিষিদ্ধ করতেই নয়, বরং প্রস্তাব করেছে এর জন্য পুরস্কৃত করতে. যেমন, যে ধূমপান ছেড়ে দিয়েছে, তাকে তার মনের শক্তির জন্য বেতনের একাংশ পুরস্কার হিসাবে দেওয়া অথবা ছুটির সঙ্গে বছরে আরও একটা দিন বেশী যোগ করা. ব্যাখ্যা খুবই সহজ: যে লোক কাজের প্রক্রিয়া থেকে কম বিচ্যুত হয় “সিগারেট খাওয়ার জন্য”, তার সময় কাজে লাগে বেশী ও মাথাও ভাল কাজ করে.