বুশেরে ইরানের প্রথম পারমাণবিক বিদ্যুত্ কেন্দ্রকে পূর্ণ ক্ষমতায় চালু করা শুরু হবে ২৩শে মে, এখন কেন্দ্রটি কাজ করছে ৭৫ শতাংশ ক্ষমতায়. এ সম্বন্ধে জানিয়েছে “ইন্টারফাক্স” সংবাদ এজেন্সি “আতোমস্ত্রোইএক্সপোর্ত” কর্পোরেশনের বিবৃতির উদ্ধৃতি দিয়ে, যা পারমাণবিক বিদ্যুত্ কেন্দ্রের নির্মাণ শেষ করেছে. রাশিয়ার নির্মাতারা এ কেন্দ্রের শিল্প-ভিত্তিক ব্যবহারের জন্য হস্তান্তর করার আশা করেন এ বছরের শেষ  দিকে. বুশেরে পারমাণবিক বিদ্যুত্ কেন্দ্রের নির্মাণ শুরু হয়েছিল ১৯৭৪ সালে জার্মান কোম্পানি “ক্রাফ্টওয়ের্ক ইউনিয়ন এ.জি-র” (“সিমেন্স/ কে.ডাব্লিউ.ইউ”) দ্বারা. রাশিয়া ও ইরানের সরকারের মাঝে ১৯৯২ সালের ২৫শে আগস্ট পারমাণবিক বিদ্যুত্ কেন্দ্র নির্মাণ সম্বন্ধে চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়, আর ১৯৯৫ সালের জানুয়ারীতে এ বিদ্যুত্ কেন্দ্রের প্রথম শক্তি-ব্লক তৈরী শেষ করার চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়. আন্তর্জাতিক পারমাণবিক শক্তি এজেন্সির পরিদর্শকদের নিয়ন্ত্রণে বুশের পারমাণবিক বিদ্যুত্ কেন্দ্র চালু করা হয় ২০১০ সালের ২১শে আগস্ট, যখন কেন্দ্রের রিয়াক্টরে পারমাণবিক জ্বালানী ভরা হয়. ২০১১ সালের ৮ই মে শক্তি-ব্লক সর্বনিম্ন নিয়ন্ত্রিত ক্ষমতার মানে রাখা হয়.