বৈকাল অঞ্চলে আজ সমস্ত দাবানল নেভানো হয়েছে. বিগত এক দিনে তাইগা বনাঞ্চলে একটি দাবানলও নথিভুক্ত করা হয় নি. বৈকাল অঞ্চলে বিপর্যয় নিরসন মন্ত্রণালয়ের মুখ্য দপ্তরে “ইতার-তাস” সংবাদ এজেন্সির সংবাদদাতাকে জানানো হয়েছে “আগুনের বিরুদ্ধে লড়াই করেছে ৩১০ জনেরও বেশি লোক এবং ৩০টি প্রযুক্তি”. অগ্নি-নির্বাপক কর্মীদের জন্য এমন বিরতি দেখা দিয়েছে দুটি মুখ্য অগ্নিকাণ্ডের পরিস্থিতির পরে, যেমন এপ্রিলে এখানকার স্তেপাঞ্চলে আগুন লেগেছিল, আর তারপরে মে মাসে বনাঞ্চল ভীষণভাবে পুড়তে শুরু করে. এ বছরে বসন্তের শুরু থেকে বৈকাল অঞ্চলে ৩৭৭ হাজার হেক্টর এলাকায় মোট ৭০৩টি দাবানলের উত্স নথিভুক্ত করা হয়েছে.