ওয়াশিংটন পাকিস্তানী কর্তৃপক্ষেরপ্রতিনিধিদের সাথে সক্রিয়ভাবে আলাপ-আলোচনা চালাচ্ছে আফগানিস্তানে ন্যাটো জোটের মালপত্রের ট্রানজিট পরিবহণ পুনরারম্ভ করার জন্য তাদের বোঝানোর চেষ্টায়, যা বন্ধ রয়েছে নভেম্বর থেকে. এ সম্বন্ধে সোমবার জানিয়েছে বৃটেনের “গার্ডিয়ান” পত্রিকা মার্কিনী সরকারের এক উত্সকে উদ্ধৃত করে. তাঁর কথায়, আলাপ-আলোচনা হয়েছে রবিবার, আশা করা হচ্ছে যে সোমবার পক্ষদ্বয় আলোচনার খতিয়ান টানবেন. গত সপ্তাহে ন্যাটো জোটের প্রদান সচিব অ্যান্ডের্স ফগ রাসমুসেন বলেন যে, পাকিস্তান চিকাগো-তে আফগানিস্তান সংক্রান্ত আন্তর্জাতিক সাক্ষাতে অংশগ্রহণের অধিকার হারাবে, যদি আফগানিস্তানে ট্রানজিট মালপত্রের জন্য যাত্রাপথ না খোলে. আফগানিস্তান সংক্রান্ত আন্তর্জাতিক সাক্ষাত্ চিকাগো-তে অনুষ্ঠিত হবে ২০-২১শে মে ন্যাটো জোটের শীর্ষ সাক্ষাতের কাঠামোতে. ইস্লামাবাদ ও ওয়াশিংটনের মাঝে সম্পর্কের অবনতি ঘটে পাকিস্তানী কর্তৃপক্ষকে না জানিয়ে পাকিস্তানে উসামা বিন লাদেনকে ধ্বংস করায় মার্কিনী বিশেষ বিভাগের দ্বারা পরিচালিত বিশেষ অভিযানের পরে. ইস্লামাবাদের আরও বেশি রোষ উদ্রেক করেছে গত বছরের নভেম্বরের ঘটনা, যখন ন্যাটো বাহিনী ভুল করে পাক-আফগান সীমানায় পাকিস্তানের প্রহরা চৌকির উপর আকাশ থেকে আক্রমণ চালায়. এর পরে পাকিস্তান পেন্টাগনের কাছে দাবি করে দেশে উপজাতিদের বাসের অঞ্চলে জঙ্গীদের ঘাঁটির উপর ড্রোন বিমানের আক্রমণ বন্ধ করে, এবং তাছাড়া তার ভূভাগ হয়ে আফগানিস্তানে ট্রানজিট মালপত্রের যাত্রাপথ বন্ধ করে দেয়.