ব্রাসেলসে সোমবার ইউরোসঙ্ঘের বৈদেশিক ব্যাপার  পরিষদের বৈঠকে একটি আলোচ্য বিষয় হবে নিকট-প্রাচ্য সংক্রান্ত আন্তর্জাতিক মধ্যস্থ “চতুষ্টয়ের” কাজকর্ম. এ সম্বন্ধে ব্রাসেলসে নাম না জানানোর শর্তে সাংবাদিকদের জানিয়েছেন এক উচ্চপদস্থ ইউরোপীয় কূটনীতিজ্ঞ. তাঁর কথায়, আলোচনা হবে “চতুষ্টয়ের” কাজকর্ম সম্বন্ধে, শান্তি প্রক্রিয়া সম্পর্কিত প্রচেষ্টা চালিয়ে যাওয়া সম্বন্ধে, প্যালেস্টাইনী ভূভাগে ইস্রাইলের বসতি নির্মাণ বিষয়ক কাজকর্ম সম্বন্ধে, এবং প্যালেস্টাইনী কর্তৃপক্ষের প্রতি আর্থিক সমর্থন সম্বন্ধে. ইউরোপীয় কূটনীতিজ্ঞ উল্লেখ করেন যে, উক্ত সব প্রশ্নে বিশেষ ঘোষণাপত্র গ্রহণের জন্য প্রস্তুতি চলছে, তবে পরিস্থিতির বিকাশ বিবেচনা করে তা আরও সংশোধন করতে হবে. ব্রাসেলসে আশা করা হচ্ছে যে, শিগগিরই ইস্রাইলের প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহুর কাছ থেকে প্যালেস্টাইনী জাতীয় প্রশাসনের নেতা মাহমুদ আব্বাসের চিঠির উত্তর পাওয়া যাবে. চিঠিতে ১৯৯৩ সালের ওসলো চুক্তির বিপদের কথা বলা হয়েছে, যে চুক্তির ফলে প্যালেস্টাইনী স্বায়ত্তশাসন গঠিত হয়েছিল.