এই বিষয়ে শুক্রবারে নিজের টুইটার মাইক্রো ব্লগে লিখেছেন, রাশিয়ার উপ পররাষ্ট্র মন্ত্রী গেন্নাদি গাতিলভ.রাষ্ট্রসঙ্ঘের রিপোর্ট অনুযায়ী, লিবিয়াতে চার হাজার লোককে বন্দী রাখা হয়েছে. তাদের উপরে অত্যাচার করার তথ্য নথিবদ্ধ করা হয়েছে, কিছু লোককে কষ্ট দিয়ে মেরে ফেলা হয়েছে, যা স্পষ্টই মানবাধিকার বিরোধী, উল্লেখ করেছেন গাতিলভ. বৃহস্পতিবারে লিবিয়াতে পরিস্থিতি নিয়ে বক্তৃতা দিয়েছেন রাষ্ট্রসঙ্ঘের মহা সচিবের এই দেশে বিশেষ প্রতিনিধি ইয়ান মার্টিন. তিনি উল্লেখ করেছেন যে, প্রায় চার হাজার গাদ্দাফি সমর্থককে জেলে বন্দী করে অত্যাচার করা হচ্ছে. মার্টিনের মতে বর্তমানের লিবিয়ার প্রশাসনের উচিত্ এই ধরনের সমস্ত রকমের বন্দীদের উপরে অত্যাচার ও অমানবিক আচরণের ঘটনার তদন্ত করা.