রাশিয়ার বিপর্যয় নিরসন মন্ত্রণালয়ের দুটি পরিবহণ বিমান ইন্দোনেশিয়ার রাজধানী জাকার্তায় পৌঁছে দিয়েছে উদ্ধার-কর্মীদের, মনস্তত্ত্ববিদদের, এবং “সুপারজেট ১০০” বিমানের দুর্ঘটনার জায়গায় অনুসন্ধানী কাজের জন্য বিশেষ সাজ-সরঞ্জাম ও হেলিকপ্টার. প্রথম বিমানে আসা রাশিয়ার বিশেষজ্ঞরা ইতিমধ্যে বিপর্যয়ের জায়গায় পৌঁছেছেন. দ্বিতীয় বিমানে আসা “বো-১০৫” হেলিকপ্টার অকুস্থলে যাত্রার জন্য প্রস্তুত. ইন্দোনেশিয়ার ত্রাণ-কর্মীরা এখনও পর্যন্ত হাসপাতালে পৌঁছে দিয়েছে নিহতদের দেহাংশ সহ ১৬টি কন্টেনার. ইন্দোনেশিয়ার কর্তৃপক্ষ জানিয়েছেন যে, ত্রাণ-কর্মীরা সালাক পাহাড়ের ঢালে, যেখানে ধাক্কা লেগেছিল বিমানের, একসারি জায়গায় যেতে পারছে না. উদ্ধার-কর্মীদের সমস্ত চেষ্টা সত্ত্বেও বিমানের ব্ল্যাক বক্স এখনও খুঁজে পাওয়া যায় নি, শনিবার জানিয়েছেন ইন্দোনেশিয়ার পরিবহণ মন্ত্রী এভের্ট এর্নেস্ট মান্ডিনগান. রাশিয়ার বিমানটির দুর্ঘটনা ঘটেছিল ৯ই মে প্রদর্শনমূলক উড়ানের সময়. বিমানে ছিল ৪০ জনেরও বেশি লোক, সেই সঙ্গে রাশিয়ার ৮ জন নাগরিক.