ইন্দোনেশিয়ার অনুসন্ধানী হেলিকপ্টারগুলি নিখোঁজ “সুখোই সুপারজেট-১০০” ভগ্নাংশ খুঁজে পেয়েছে. ইন্দোনেশিয়ার জাভাদ্বীপে উদ্ধার সেবা-ব্যবস্থার প্রতিনিধি কেতুত পারওয়া বৃহস্পতিবার সাংবাদিক সম্মেলনে এ খবর সমর্থন করেছেন যে, বুধবার নিখোঁজ হওয়া সুখোই সুপারজেট-১০০ বিমানের ভগ্নাংশ খুঁজে পাওয়া গেছে. অনুসন্ধান চালানো হয় মাটিতে এবং আকাশ থেকে. ইন্দোনেশিয়ার টেলিভিশন সালাক পাহাড়ের এলাকায় বিমান ধ্বংসের জায়গার ফোটো দেখিয়েছে. বিমানটির ধাক্কা লেগেছিল উল্লম্ব পাহাড়ের গায়ে, বিমানের একাংশ পাহাড়ের ঢালে রয়ে গেছে, আর বাকি অংশ নিচে গিয়ে পড়েছে, জানিয়েছে টেলি-চ্যানেল. বিমানটি পড়ার জায়গার কাছে গঠন করা হয়েছে অপারেটিভ সদর দপ্তর, বিমানের ভগ্নাংশ এবং “ব্ল্যাক বক্স” অনুসন্ধানের কাজ শুরু হয়েছে. এশিয়ার ছয়টি দেশে প্রথম প্রদর্শনমূলক উড়ানের ইতিহাসে মাঝারী পাল্লার "সুখোই সুপারজেট-১০০" বিমানটি বুধবার জাকার্তায় প্রদর্শনী উড়ানের সময় রেডারের স্ক্রীন থেকে অদৃশ্য হয়ে যায়. সঠিক করা তথ্য অনুযায়ী, বিমানটিতে ছিল রাশিয়ার আটজন সহ পাঁচটি দেশের ৪৮ জন নাগরিক. রাশিয়ার প্রধানমন্ত্রী দমিত্রি মেদভেদেভ এ ঘটনা তদন্তের কমিশন গঠন করেছেন. স্থানীয় কর্তৃপক্ষ মনে করে যে, বিমানটির ধাক্কা লেগেছিল পাহাড়ে, অথবা, সম্ভবত, বিমানটি দখলিত হয়েছিল. ইন্দোনেশিয়ার রাষ্ট্রপতি সুসলো বামবাঙ্গ ইউদোইওনো রাশিয়ার বিমানটির ধ্বংস হওয়ার ঘটনা সমর্থন করেছেন এবং বিমানটি ধ্বংস হওয়ার কারণ বিশদ তদন্ত করার দাবি করেছেন.