মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র সচিব হিলারী ক্লিন্টন চীনা-মার্কিন স্ট্র্যাটেজিক অর্থনৈতিক সংলাপের চতুর্থ রাউন্ডে অংশগ্রহণের জন্য বুধবার চীনে পৌঁছেছেন. সর্বোচ্চ পর্যায়ে চীনা-মার্কিন সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে ৩রা থেকে ৪ঠা মে, জানিয়েছে “ইতার-তাস” সংবাদ এজেন্সি. মার্কিনী পক্ষ থেকে তাছাড়া তাতে অংশগ্রহণ করবেন মার্কিনী অর্থমন্ত্রী টিমোথি হাইটনার, যিনি বেজিংয়ে দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কের অর্থনৈতিক অংশের প্রধান সব প্রশ্ন আলোচনা করবেন. চীনা পক্ষ থেকে আলাপ-আলোচনায় তাঁদের শরিক হবেন চীনের রাষ্ট্রীয় পরিষদের উপ-প্রধানমন্ত্রী ভান জিশান এবং চীনের রাষ্ট্রীয় পরিষদের সদস্য দাই বিনগো. ২০০৯ সাল থেকে পরিচালিত এ সংলাপে পরম্পরাগতভাবে প্রধান আলোচ্য বিষয় হল চীনা-মার্কিন বাণিজ্যে ভারসাম্য হীনতার সমস্যা. সংলাপের কাঠামোতে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ একসারি আন্তর্জাতিক সমস্যাও আলোচিত হবে. নিকট প্রাচ্যের পরিস্থিতি বিবেচনা করে, নিঃসন্দেহে, একটি আলোচ্য বিষয় হবে সিরিয়ার সঙ্কট. আশা করা হচ্ছে যে, আলাপ-আলোচনার অংশগ্রহণকারীরা দক্ষিণ চীনা সাগর সংক্রান্ত বিষয়ও স্পর্শ করবেন, যেখানে এখন দু দেশের সম্পর্কে উত্তেজনা পরিলক্ষিত হচ্ছে. আসন্ন আলাপ-আলোচনা অনুষ্ঠিত হবে এ খবর দেখা দেওয়ার পটভূমিতে যে, বেজিংয়ে গৃহবন্দী অবস্থা থেকে পালিয়ে মার্কিনী দূতাবাসে লুকিয়ে আছে চীনের মানব অধিকার রক্ষক চেন গুয়ানচেন.