ফিফা সেন্ট-পিটার্সবার্গের উচ্চ মূল্যায়ণ করেছে

ফিফার পরিদর্শন কমিশন সেন্ট-পিটার্সবার্গে কাজের অগ্রগতিতে সন্তুষ্ট, সাংবাদিকদের এই সম্পর্কে জানিয়েছেন ফিফার প্রতিনিধি য়ুরগেন ম্যুলার. সেন্ট-পিটার্সবার্গ থেকেই শুরু হয়েছে রাশিয়ার উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলে ফিফার কর্মচারীদের পরিদর্শন. তাদের বাছতে হবে সেই সব রুশী শহর, যেখানে ২০১৮ সালের বিশ্বকাপের ম্যাচ আয়োজিত হবে.

     রাশিয়ায় বিশ্বকাপ ফুটবলের আয়োজনের ধারনায় সেন্ট-পিটার্সবার্গকে বিশেষ আসন দেওয়া হয়েছিল. পরিকল্পনা অনুযায়ী সেখানে একটা সেমি-ফাইন্যাল ম্যাচ হবে. তাছাড়া সরকারীভাবে গ্রুপ নির্দ্ধারনের লটারীও সেখানে আয়োজিত হবে.

  পরিদর্শনের সময় ফিফার পরিদর্শকরা দেখেছেন ক্রেস্তোভস্কি দ্বীপে নতুন স্টেডিয়াম নির্মাণের কাজ কতদূর এগিয়েছে. নতুন স্টেডিয়ামটি নির্মাণ করা হচ্ছে বিশ্ববিখ্যাত জাপানী স্থপতি কিসিও কুরোকাওয়ার প্রোজেক্ট অনুযায়ী. আকৃতির দিক থেকে স্টেডিয়ামটি হবে মহাকাশ যানের মতো. মাঠ সেখানে সরিয়ে নেওয়া যাবে, ও ছাদও প্রয়োজনে খোলা যাবে. এটা পীচের উত্কর্ষতার গ্যারান্টী দেবে. আগামী ৩টি বিশ্বকাপ আয়োজক কমিটির প্রধান য়ুরগেন ম্যুলার বলছেন – আমাদের সঠিক মেয়াদে নির্মাণকার্য শেষ করার গ্যারান্টি দেওয়া হয়েছে.

     নির্মীয়মান স্টেডিয়ামটি পরিদর্শনের পরে আমরা একমত হয়েছি, যে আমাদের সব দাবী পালন করা হচ্ছে. এখন আমরা স্থানীয় সংগঠকদের সঙ্গে একসাথে তথ্য সংগ্রহ করছি ও সেপ্টেম্বর নাগাদ স্টেডিয়ামটি সম্পর্কে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেব.

     আপাততঃ শহরে ফুটবল-ফ্যানেদের কোথায় আশ্রয় দেওয়া হবে, সেই প্রশ্ন থেকে যাচ্ছে. একটা অপশ্যান – শহরের একেবারে কেন্দ্রস্থলে বিশ্ববিখ্যাত হারমিটেজ মিউজিয়ামের পার্শ্ববর্তী চকে. পরিকল্পনা করা হয়েছে, যে সেখানে বিশাল স্ক্রীন ও মঞ্চ বসানো হবে.

       বিশ্বকাপ আয়োজন করার সাথে সম্পর্কিত সমস্ত কেন্দ্র ফিফার প্রতিনিধিরা প্রদর্শন করছে – ফুটবল টিমগুলির শিবির, প্রশিক্ষণের জন্য মাঠ, শহরের হালঃ বিমানবন্দর, যানবাহন ব্যবস্থা, হোটেলের পরিস্থিতি. ফিফার প্রতিনিধিরা শুধুমাত্র প্রশ্ন করে না, তারা উপদেশও দেয়, যে কিভাবে বিশ্বকাপের আয়োজন ভালোভাবে করে ওঠা যায় – বলছেন সেন্ট-পিটার্সবার্গ নগরীর কর্পোরেশনের মুখপাত্র নিকোলাই রাস্তভোরতসেভ. –

    আমাদের খুব ভালো লাগছে, যে ফিফা বিশ্বের পরিসরে এত বড় অনুষ্ঠাণের প্রতি এত মনোযোগ দিচ্ছে, যাতে সেন্ট-পিটার্সবার্গে উঁচুস্তরে তার আয়োজন করা যায়. আমি আশা করি, যে ফিফার কর্মচারীরা যথেষ্ট তথ্য সংগ্রহ করেছেন, যার মাধ্যমে বুঝতে পারবেন, যে আমাদের শহর কিভাবে ও কতখানি দরদ দিয়ে এই উত্সবের প্রস্তুতি নিচ্ছে. সামনে আরও অনেক কাজ. অবশ্যই, আরও অনেক পরিদর্শনকারী কমিশন আসবে. এবং অবশ্যই আমরা ফিফার বিশ্বকাপ আয়োজনের ব্যাপারে গভীর অভিজ্ঞতা মাথায় রাখবো.

     সেন্ট-পিটার্সবার্গ থেকে ফিফার প্রতিনিধিরা গেছেন কালিনিনগ্রাদে. এর আগে প্রতিনিধিরা রাশিয়ার দক্ষিণাঞ্চলে ক্রাসনাদার ও রস্তোভ সফর করেছেন. মে মাসে ফিফার বিশেষজ্ঞরা একাতেরিনবার্গ, ইরাস্লাভল ও মস্কো সফর করবেন, আর জুনে ভোলগা নদীর তীরবর্তী শহরগুলি. কোন কোন শহরে বিশ্বকাপের ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে, সে ব্যাপারে তারা চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবেন সেপ্টেম্বরে.