আন্তর্জাতিক পারমাণবিক শক্তি এজেন্সির সাথে সহযোগিতায় ইরানকে উদ্বুদ্ধ করার জন্য নিষেধাজ্ঞার প্রভাবের সম্ভাবনা শেষ হয়েছে, বলেছেন রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই লাভরোভ শুক্রবার “রস্সিয়া ২৪” টেলি-চ্যানেলের সম্প্রচারে. তেহেরানের বিরুদ্ধে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও ইউরোসঙ্ঘের দ্বারা গৃহীত একতরফা নিষেধাজ্ঞার কথায় এসে লাভরোভ ব্যাখ্যা করে বলেন যে, তা নিঃসন্দেহে ইরানে সামাজিক-অর্থনৈতিক অবস্থাকে প্রভাবিত করে. কিন্তু আন্তর্জাতিক জনসমাজের ক্রিয়াকলাপের লক্ষ্য হল এ অবস্থার অবনতি ঘটানো নয়, বরং আলাপ-আলোচনায় ইরানের পারমাণবিক সমস্যার মীমাংসা করা. লাভরোভ উল্লেখ করেন যে, ইরানের ভিতরে রাজনৈতিক বিরোধিতা রয়েছে, তবে ইরানের পারমাণবিক কর্মসূচি নিয়ে কোনো মতভেদ নেই. সকলেই মনে করে যে, বিদ্যুত্শক্তি পাওয়ার জন্য পারমাণবিক প্রকৌশলের আত্তিকরণে ইরানের নিঃসন্দেহ অধিকার আছে, এবং সত্যি সত্যিই তা ঠিক, এবং তা সূত্রবদ্ধ রয়েছে পারমাণবিক অস্ত্র প্রসার নিরোধের চুক্তিতে এবং আন্তর্জাতিক পারমাণবিক শক্তি এজেন্সির সমস্ত সিদ্ধান্তে. যেকোনো দেশের ইউরেনিয়াম পরিশোধন করার অধিকার আছে, তবে শুধু জ্বালানী উত্পাদনের জন্য, উল্লেখ করেন লাভরোভ. তাছাড়া, লাভরোভ বলেন যে, পাশ্চাত্যের একতরফা নিষেধাজ্ঞা ইরানে সেই সব শক্তির সত্যতার প্রমাণ দেয়, যাদের স্থিরবিশ্বাস যে, পাশ্চাত্য পারমাণবিক প্রকৌশল প্রসার নিরোধ সংক্রান্ত সমস্যা মীমাংসায় আগ্রহী নয়, বরং শাসন ব্যবস্থার বদলেই আগ্রহী.