পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইউসুফ রাজা গিলানি রাজনৈতিক কেচ্ছা, যার তিনি মধ্যমনি, তা সত্ত্বেও পদত্যাগ করতে অস্বীকার করছেন. স্থানীয় সংবাদ মাধ্যমগুলি এ সম্পর্কে জানাচ্ছে. গতকাল পাকিস্তানের সুপ্রীম কোর্ট গিলানিকে আইন লঙ্ঘনের অভিযোগে অভিযুক্ত করেছে. শুরুতে গিলানিকে ৬ মাসের কারাদন্ড দেওয়ার হুমকি দেওয়া হয়েছিল. তবে আদালত পরে সিদ্ধান্ত নিয়েছে, যে প্রতীকমুলক সাজা যথেষ্ট হবে. প্রধানমন্ত্রীকে জানানো হয়েছিল, যে আদালত বিচারের রায় ঘোষণা না করা পর্যন্ত প্রধানমন্ত্রী বন্দী থাকবেন. রায় ঘোষণা করার পরে গিলানিকে মুক্তি দেওয়া হয় এবং তিনি আদালত ছেড়ে যান. প্রধানমন্ত্রীর সেক্রেটারিয়েট সতর্ক করে দিয়েছে, যে তারা অ্যাপীল করবে. পাক সংবাদ মাধ্যমগুলিতে আলোচনা চলছে, যে আদালতের এরকম রায় পাওয়ার পরে গিলানির প্রধানমন্ত্রীর পদে আসীন থাকার অধিকার আছে কি না.