যে বোয়িং ৭৩৭-২০০ এরোপ্লেনটি আজ স্থানীয় সময় সন্ধ্যা ছটা বেজে চল্লিশ মিনিট সময়ে ইসলামাবাদের উপকণ্ঠে এক গ্রামের উপরে ভেঙে পড়েছে, তাতে বিমানের যাত্রী ও কর্মী সহ ১২৭ জন ছাড়াও অন্য লোকজনও মারা যেতে পারতেন, কারণ এটি প্রায় এক কিলোমিটারেরও বেশী জায়গা জুড়ে পড়ে ভেঙেছে.

    করাচি থেকে ইসলামাবাদে আসা এই বিমানটি প্রবল বৃষ্টিপাত সহ ঝড়ের সম্মুখীণ হয়েছিল ও বিমান বন্দরে অবতরণের ঠিক আগেই এটির সঙ্গে যোগাযোগ ছিন্ন হয়ে গিয়েছিল.

রুশ দূতাবাসের খবর অনুযায়ী বিমান দুর্ঘটনার ফলে কোনও রাশিয়ার নাগরিক মারা যান নি বলে আপাততঃ খবর পাওয়া গিয়েছে.

    এই বিষয়ে ইতার – তাস সংবাদ সংস্থাকে পাকিস্তানের রুশ দূতাবাস থেকে খবর দেওয়া হয়েছে. প্রত্যক্ষদর্শীদের বর্ণনা অনুযায়ী ভেঙে পড়ার আগে বিমানটির একটি এঞ্জিনে আগুন ধরে গিয়েছিল.