রাজকুমার হিরানি পরিচালিত ভারতে অন্যতম হিট ফিল্ম ‘থ্রি ইডিয়টস’ এখন রাশিয়ায় প্রদর্শিত হচ্ছে. এই ছবিটি দিয়েই মস্কো ও সেন্ট-পিটার্সবার্গে আধুনিক ভারতের চলচ্চিত্র ও সংস্কৃতি উত্সব শুরু হয়েছে, যা ভারত ও রাশিয়ার মধ্যে কূটনৈতিক সম্পর্ক স্থাপণের ৬৫ তম বার্ষিকীর প্রতি উত্সর্গীকৃত. সিনেমা হলগুলি ফিল্মটি দেখার জন্য লোকের ভীড়ে উপচে পড়ছিল. দর্শকরা ফিল্মের অন্যতম মুখ্য ভূমিকায় অভিনয়কারী ক্যারিশমাসম্পন্ন শারমন যোশির সাথে সাক্ষাত্কারও ছাড়তে রাজি ছিল না. ভারতীয় সিনেমাপ্রেমী রুশীরা তাকে ভালো করেই জানে ও চেনে.

      রেডিও রাশিয়ার সংবাদদাতাকে দেওয়া সাক্ষাত্কারে শারমন যোশি বলছেন – রুশীদের ভারতের প্রতি এত উষ্ণ অনুভূতিতে আমি অভিভূত. তাদের আধুনিক ভারতীয় চলচ্চিত্রের প্রতি আগ্রহ, অতীতের ভারতীয় সিনেমা সম্পর্কে তাদের গভীর জ্ঞান আমাকে মুগ্ধ করেছে.

    শারমন যোশির মতে, সিনেমা এবং সবমিলিয়ে সংস্কৃতি আমাদের দুই দেশের জনগণ, সংস্কৃতিশিল্পী ও অভিনেতাদের ঘনিষ্ঠতর হতে সহায়তা করে. – আমি খুব খুশি, যে রাশিয়ায় এসেছি – বলছেন তিনি. ভারতীয়রা রাশিয়ার সাথে ঘনিষ্ঠ যোগাযোগকে উঁচু মূল্য দেয়. অতীতে আমাদের দুই দেশের চলচ্চিত্রকারেরা বহু যৌথ অবিসম্বাদিত ফিল্ম তৈরি করেছে. এই ক্ষেত্রে প্রখ্যাত অভিনেতা ও পরিচালক রাজ কাপুরেরও বড় অবদান ছিল. তার ফিল্মগুলি রাশিয়ায় লোকে জানে ও ভালোবাসে. এই অভিমুখে নতুন করে কাজ শুরু করলে বোধহয় খুব ভালো হতো. আমি ব্যক্তিগতভাবে খুবই চাই কোনো যৌথ ইন্দো-রুশী ফিল্মে অভিনয় করতে.

   যৌথ প্রকল্পে নতুন নতুন ফিল্ম শ্যুটিং করার ব্যাপারে সেন্ট-পিটার্সবার্গে শারমন যোশি ও স্থানীয় চলচ্চিত্র কলাশিল্পীদের মধ্যে কথাবার্তা হয়েছে.

    ফিল্মোত্সবের জেনেরাল ডিরেক্টর ল্যুদমিলা লিপেইকো বলছেন – আমরা এই বিষয়ে আলোচনা করতে প্রস্তুত. এবং যারা ‘মেরা নাম জোকার’, ‘আলিবাবা অউর চাল্লিস চোউর’, ‘সোহিনী অউর মহিওয়াল’ এর মতো ফিল্ম তুলেছিলেন, তাদের ঐতিহ্য বহন করতে চাই. কারণ উক্ত সব ফিল্ম ও আরও বহু ইন্দো-রুশী যৌথভাবে নির্মিত ছবি এখনো সিনেমাহল ভর্তি করে দেয়. সেইসাথেই রাশিয়ার দর্শকদের মধ্যে আধুনিক ভারতীয় চলচ্চিত্র অভিনেতা ও পরিচালকদের প্রতি প্রবল আগ্রহ. কিন্তু আমরা তাদের সম্পর্কে খুব বেশি একটা জানি না.

         ল্যুদমিলা লিপেইকো বলছেন – ফিল্মোত্সবে অংশ নেওয়া ছবিগুলি দেখতে হল ভরে যায়. আমরা প্রদর্শনের জন্য বেছে নিয়েছি গত কয়েক বছরের কয়েকটি সবচেয়ে হিট ফিল্ম. তাদের মধ্যে আছে ‘A Wednesday’, ‘Delhi-6’, ‘Fashion’, ‘Wake up Sid’, ‘Corporate’, ‘Never say good bye’ ও অন্যান্য ছবি. এই সব ফিল্মে পরিচালকদের সৃষ্টিমুখী সন্ধান ও নতুন নতুন আবিস্কার, প্রযুক্তিগত উন্নয়ন, অভিনেতাদের অসাধারন অভিনয় মিলেমিশে আছে. আমাদের আশা এই, যে এবারের ফিল্মোত্সব রুশী দর্শকদের সামনে ভারতীয় চলচ্চিত্রের নতুন, অসামান্য মুখ তুলে ধরবে. এই সব ফিল্মে ভারতের ব্যাপক অর্থনৈতিক, বৈজ্ঞানিক, প্রযুক্তিগত উন্নতি প্রতিফলিত হওয়ার পাশাপাশি, আধুনিক বাস্তবতা ও ভারতীয়দের চিরাচরিত বহু শতাব্দীর ঐতিহ্যের প্রতি শ্রদ্ধাও প্রদর্শিত হয়েছে.

      আধুনিক ভারতীয় সিনেমা ও সংস্কৃতি উত্সব চলবে ক্রাসনাদারে ও সাইবেরিয়ায় – একাতেরিনবার্গে, ওমস্কে, নোভোসিবিরস্কে. মস্কো ও সেন্ট-পিটার্সবার্গে উত্সবের উদ্বোধনীতে অনুপমা চোপড়ার লেখা শাহরুখ খানের ওপর ‘কিং অফ বলিউড’ বইটির রুশী সংস্করণও প্রকাশিত হয়েছে.