বিশ্ববিখ্যাত ট্রুপ ‘কাওয়াল নিজাম ব্রাদার্স’ ভারতবর্ষ থেকে রাশিয়ায় এসে তাদের সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশন করছে এবং মস্কোয়, সেন্ট-পিটার্সবার্গে, তভেরে হল দর্শকদের ভীড়ে উপচে পড়ছে. এই ট্রুপটিই রাশিয়ার রাজধানীতে ভারতের আধুনিক সংস্কৃতি ও চলচ্চিত্র উত্সবের সুচনা করেছে. অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এস.এম.কৃষ্ণ. তিনি উল্লেখ করেছেন, যে আমরা এই উত্সবকে ভারত ও রাশিয়ার মধ্যে কূটনৈতিক সম্পর্ক স্থাপণের ৬৫ তম বার্ষিকীর প্রতি উত্সর্গ করছি.

     ভারত ও রাশিয়াকে নজীরবিহীন পারস্পরিক সম্পর্ক সংযুক্ত রাখে – বলছেন মিঃ কৃষ্ণ. সময়ের সাথে সাথে তা আরও দৃঢ় হয়েছে, বহু কঠিন পরীক্ষা অতিক্রম করেছে. মুল আন্তর্জাতিক ও আঞ্চলিক রাজনীতির প্রশ্নে ভারত ও রাশিয়ার দৃষ্টিভঙ্গী ও মতাদর্শ খাপ খায়. সর্বোচ্চ নেতৃবৃন্দের পর্যায়ে নিয়মিত দেখাসাক্ষাত পারস্পরিক সম্পর্কের অবিচ্ছেদ্য অংশ হয়ে দাঁড়িয়েছে. আমাদের দুই দেশের জনগণের মধ্যে বোঝাপড়া বৃদ্ধি করতে বিশেষ করে সাহায্য করে সাংস্কৃতিক যোগাযোগ. লেভ তলস্তোয় ও মহাত্মা গান্ধীর মধ্যে চিঠির আদান-প্রদান অমুল্য দৌলত. রেরিখদের পরিবারের সৃজন – ভারতবর্ষ যাদের জন্য স্বগৃহে পরিণত হয়েছিল. বর্তমানে দুই দেশের মধ্যে যোগাযোগের ক্ষেত্রে রুশী ভারততত্ত্ববিদেরা বড় ভূমিকা পালন করেন. মিঃ কৃষ্ণ সবশেষে উল্লেখ করেছেন – আমাদের আশা এই, যে সদ্য শুরু হওয়া উত্সব রুশী দর্শকদের আনন্দ দেবে, তাদের সামনে আধুনিক ভারতীয় সংস্কৃতির নতুন নতুন দিক উন্মোচন করবে.

    সত্যিই ভারতের বহু শতাব্দীব্যাপী সঙ্গীত ও নৃত্যের ঐতিহ্য বহন করে কাওয়ালি ট্রুপ. তাদের হলের দর্শকদের সাথে সরাসরি যোগাযোগ করার মুন্সীয়ানা, যারাও একইমাত্রায় সায় দেয় – সেটা অতুলনীয়. রুশী দর্শকদের এটা বিশেষ করে ভালো লেগেছে.

     ‘সিস্টেমা’ কোম্পানীর টপ ম্যানেজার আন্দ্রেই তেরেবেনিন স্বীকার করছেন, যে কাওয়ালি ট্রুপ, যাদের ভারতবর্ষে, ইউরোপে এবং পৃথিবীর অন্যান্য প্রান্তে আগাম কয়েক বছরের অনুষ্ঠানসূচী নির্দ্ধারিত হয়ে আছে, তাদের রাশিয়ায় আনার কাজ সহজ ছিল না. আমাদের পক্ষে এটা সম্ভব হয়েছে, তার কারণ আমরা ভারতের সাথে ঘনিষ্ঠভাবে কাজ করি.

     আমরা ৪ বছর হয়ে গেল ভারতের সাথে কাজ করছি, - বলছেন ‘সিস্টেমা’ কোম্পানীর প্রতিনিধি তেরেবেনিন. আমাদের কোম্পানীতে সাড়ে তিনহাজার কর্মচারী. এই মুহুর্তে আমরা ভারতীয় অর্থনীতিতে সবচেয়ে বড় বিনিয়োগকারী. যখন এই উত্সবের আয়োজক রুশীপক্ষ আমাদের কাছে ভারতের প্রথম সারির সংস্কৃতিশিল্পীদের আমন্ত্রণ করার ও তাদের পারিশ্রমিক দেওয়ার অনুরোধ জানিয়েছিল, আমরা তত্ক্ষণাত রাজি হয়েছি. হ্যাঁ, এবার দেখুন ভারতের অন্যতম সেরা ট্রুপকে, যারা এর আগে কখনো রাশিয়ায় অনুষ্ঠান করেনি. আমরা একান্তভাবেই চাই, যাতে রাশিয়ার জনগণ ভারতের মহান ও সুসমৃদ্ধ সংস্কৃতির সাথে আরও ঘনিষ্ঠভাবে পরিচিত হয়, আধুনিক শিল্পীদের আরও কাছ থেকে জানতে পারে.

     ভারতীয় অনন্য সূক্ষ সঙ্গীত, মুগ্ধ করে দেওয়া সুফীদের গানের সাথে মৌলিকভাবে মিশে গেছে দরবেশদের উদ্দাম নৃত্য. তারা যেন মঞ্চ থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে অন্য কোনো জগতে চলে যাচ্ছিল. রুশী দর্শকদের প্রবল করতালি তাদের আবার পৃথিবীতে ফিরিয়ে আনলো.

      রেডিও রাশিয়াকে দেওয়া সাক্ষাত্কারে নিজামি ভাইয়েদের ট্রুপের অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা গুলাম বললেন – আমরা রাশিয়ায় গান গাইতে এসেছি এটাই দেখাতে, যে আমরা কতখানি ভালোবাসি এই দেশটাকে, এখানকার মানুষদের. আমরা আপনাদের হৃদয়ের উষ্ণতা, আমাদের সংস্কৃতির প্রতি আপনাদের জীবন্ত আগ্রহ অনুভব করছি. গুলাম নিজামি আরও যোগ করেছেন, যে রাশিয়ায় ভারতের উত্সব – এটা সহমর্মীতার বার্তা, আমাদের দুই দেশের জনগণের পারস্পরিক পছন্দের স্বাক্ষর, যা বছরের পর বছর ধরে আরও মজবুত হচ্ছে.

0     ভারত ও রাশিয়ার মধ্যে কূটনৈতিক সম্পর্ক স্থাপণের ৬৫ তম বার্ষিকীর প্রতি উত্সর্গীকৃত আধুনিক ভারতের সংস্কৃতি ও চলচ্চিত্র উত্সব চলবে সারা বছর ধরে. ৬টি শহরে – মস্কোয়, সেন্ট-পিটার্সবার্গে, নোভোসিবিরস্কে, একাতেরিনবার্গে, ওমস্কে ও ক্রাসনাদারে দেখানো হবে নতুন নতুন সব ভারতীয় ফিল্ম, ফোটো প্রদর্শনী ও ভারতীয় রান্না শেখানোর ওয়ার্কশপেরও আয়োজন করা হবে.