মঙ্গোলিয়ার প্রাক্তন-রাষ্ট্রপতি ও দেশের গণবিপ্লবী পার্টির শীর্ষনেতা নামবারীন এনবায়ারকে গ্রেপ্তার করায় দেশে রাজনৈতিক পরিস্থিতি তীব্রতর হয়েছে. দুর্নীতিবিরোধী কমিটির বিশেষ বাহিনী এনবায়ারের ব্যক্তিগত দেহরক্ষীদের সাথে সংঘর্ষের পরে তাকে গ্রেপ্তার করেছে. এরপরে মঙ্গোলিয়ার গণবিপ্লবী পার্টি এনবায়ারের সমর্থকদের জন্য জরুরী অধিবেশন ডেকেছিল. তার সমর্থকরা ঘোষণা করেছে, যে পুলিশ ও মঙ্গোলিয়ায় দুর্নীতির বিরুদ্ধে সংগ্রামের জন্য গঠিত স্বাধীন কমিটির সাথে সংঘর্ষ কোনোভাবেই মেনে নেওয়া যায় না. তারা দেশের সংসদে এই প্রশ্ন উত্থাপন করতে দৃঢ়প্রতিজ্ঞ. অন্যদিকে দুর্নীতিবিরোধী কমিটি ঘোষণা করেছে, যে গ্রেপ্তার করা হয়েছে আইনানুগ ভাবেই. ঐ কমিটির তদন্ত বিভাগ গত এক বছর ধরে এনবায়ারের কার্যকলাপ নিয়ে তদন্ত চালাচ্ছে. তার বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ ছাড়াও ২০০৮ সালে গন্ডগোল চলার সময় কয়েকজন লোককে হত্যা করার ক্ষেত্রেও তার হাত ছিল বলে সন্দেহ করা হচ্ছে. মঙ্গোলিয়ার গণবিপ্লবী পার্টির শীর্ষনেতা এনবায়ার ২০০৫ সালে দেশের রাষ্ট্রপতি পদে নির্বাচিত হন. ঐ পদে তিনি ২০০৯ সাল পর্যন্ত আসীন ছিলেন. ২০০৯ সালে মঙ্গোলিয়ায় নির্বাচনের পর শাসনক্ষমতায় এসেছেন গণতান্ত্রির পার্টির নেতা জাহিয়াগিইন এলবেগদোর্জ.