সিরিয়া সম্পর্কে রাষ্ট্রসঙ্ঘ ও আরব রাষ্ট্র লীগের বিশেষ প্রতিনিধি কোফি আননের শান্তিপূর্ণ মীমাংসার পরিকল্পনা অনুযায়ী সিরিয়ায় বৃহস্পতিবার স্থানীয় সময় সকাল ৬টা ( গ্রীনউইচ সময় অনুযায়ী রাত ৩টায়) অগ্নি সংবরণের ব্যবস্থা বলবত্ হয়েছে. এর প্রাক্কালে সিরিয়ার সরকার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে যে, দেশে তথাকথিত “সশস্ত্র বিরোধীপক্ষের” বিরুদ্ধে সমস্ত সামরিক অভিযান বন্ধ করা হবে. একই সঙ্গে, দামাস্কাস যেকোনো সন্ত্রাসবাদী আক্রমণের ক্ষেত্রে বল প্রয়োগের অধিকার বজায় রাখছে. বিরোধীপক্ষের প্রতিনিধিরা ঘোষণা করেছে যে, অগ্নি সংবরণের ব্যবস্থা পালন করবে, যদি দামাস্কাসও তা করে. সিরিয়ার বিরোধী দলগুলির প্রতিনিধিদের উদ্ধৃতি দিয়ে “ইন্টারফাক্স” সংবাদ এজেন্সি জানিয়েছে যে, সকাল ৬টা থেকে সিরিয়ায় রক্তক্ষয়ের কোনো ঘটনার উল্লেখ করা হয় নি যেমন সরকারী বাহিনীর তরফ থেকে, তেমনই বিরোধীপক্ষের তরফ থেকে. মস্কোয় আননের পরিকল্পনার সাফল্যের আশা করা হচ্ছে, তবে প্ররোচনা এড়ানোর জন্য সিরিয়ায় তাড়াতাড়ি পর্যবেক্ষকদের পাঠানোর পক্ষে মত প্রকাশ করছে, ওয়াশিংটনে বলেছেন রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই লাভরোভ. গত বুধবার তিনি রাষ্ট্রসঙ্ঘের সাধারণ সম্পাদক বান কি মুন-কে অনুরোধ করেছেন সিরিয়ায় আন্তর্জাতিক পর্যবেক্ষকদের পাঠানোর সিদ্ধান্ত তাড়াতাড়ি গ্রহণ করার. লাভরোভ বলেন, “আমি প্ররোচনার সম্ভাবনা বাদ দিই না, সেজন্য সিরিয়ার মাটিতে পর্যবেক্ষকদের উপস্থিতি প্রয়োজন”. একই সঙ্গে, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রপতি বারাক ওবামা এবং জার্মানির চ্যান্সেলার আঙ্গেলা মের্কেল একমতে এসেছেন যে, সিরিয়ার কর্তৃপক্ষ অগ্নি সংবরণের বাধ্যবাধকতা পালন করছে না. হোয়াইট হাউজের খবরে বলা হয়েছে যে, টেলিফোন আলাপে তাঁরা সিরিয়া সম্পর্কে “রাষ্ট্রসঙ্ঘের নিরাপত্তা পরিষদের তরফ থেকে আরও চূড়ান্ত ক্রিয়াকলাপের” প্রয়োজনীয়তার কথা বলেছেন.