0রাশিয়ায় আজ ৫০তম বার পালিত হচ্ছে মহাকাশযাত্রা দিবস.ঠিক ৫০ বছর আগে – ১৯৬১ সালের ১২ই এপ্রিল – ইউরি গাগারিন “ভস্তোক” মহাকাশযানে পৃথিবীতে প্রথম পৃথিবী প্রদক্ষিণ করেন. ১০৮ মিনিটের এই মহাকাশযাত্রা মহাকাশ আত্তীকরণের এক নতুন যুগের সূচনা করে. গাগারিনের ঐতিহাসিক মহাকাশযাত্রার পরে বিগত পঞ্চাশ বছরে মানবজাতি মহাকাশের আত্তীকরণে বিশাল পদক্ষেপ করেছে. তবুও, এ ক্ষেত্রে বেশির ভাগ রেকর্ড আগের মতোই রাশিয়ার: পৃথিবীর প্রথম মহাকাশচারী (ইউরি গাগারিন), খোলা মহাকাশে প্রথম বের হওয়া (আলেক্সেই লেওনোভ), প্রথম মহিলা-মহাকাশচারী (ভালেন্তিনা তেরেশকোভা), সবচেয়ে দীর্ঘকালীন – ৪৩৭ দিনেরও বেশি মহাকাশযাত্রা (ভ্যালেরি পলিয়াকোভ) এবং আরও অনেক কিছু. রাশিয়ার বিজ্ঞান অ্যাকাডেমির মহাকাশ অধ্যয়ন ইনস্টিটিউটের ডিরেক্টর লেভ জেলিওনি-র কথায়, আগামী কয়েক বছরে রাশিয়ার মহাকাশ বিজ্ঞান নতুন কর্তব্য স্থাপন করবে – চাঁদে অভিযাত্রী দল পাঠানোর, যার দুই মেরুতে বিজ্ঞানীরা জলের বরফ আবিষ্কার করেছেন. পৃথিবীর এ উপগ্রহ সফরের পরে মঙ্গল গ্রহে এবং অন্যান্য গ্রহে যাওয়ার পরিকল্পনা আছে, আশ্বাস দেন জেলিওনি. রাষ্ট্রসঙ্ঘের সাধারণ অ্যাসেম্বলির সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ১২ই এপ্রিল সরকারীভাবে মানুষের মহাকাশযাত্রার আন্তর্জাতিক দিবস হিসেবে ঘোষণা করা হয়েছে.