সিরিয়ার প্রশাসন কোফি আন্নানের সঙ্কট নিয়ন্ত্রণের পরিকল্পনা বাস্তবায়নের কাজ শুরু করেছে. কিন্তু এই দেশে হিংসা বন্ধ করা সম্ভব, যদি বিরোধের সমস্ত পক্ষই যোগাযোগের মাধ্যমে কাজ করে, এই কথাই আজ ঘোষণা করেছেন রাশিয়ার পররাষ্ট্র দপ্তরের প্রধান সের্গেই লাভরভ, তাঁর সিরিয়ার সহকর্মী ওয়ালিদ মুয়াল্লিমের সঙ্গে আলোচনার শেষে. লাভরভের কথামতো, রাষ্ট্রসঙ্ঘের বিশেষ প্রতিনিধি কোফি আন্নানের মিশনের সাফল্যের জন্য প্রয়োজন যত দ্রুত সম্ভব অগ্নি সম্বরণ সংক্রান্ত আন্তর্জাতিক পর্যবেক্ষণের ব্যবস্থা নিয়ে সমঝোতা করা. রাশিয়ার বিশেষজ্ঞরা এই পর্যবেক্ষক দলে থাকতে পারে বলে জানিয়েছেন লাভরভ.

সিরিয়াতে সমস্ত পক্ষের তরফ থেকে অবিলম্বে অগ্নি সম্বরণ আজ সবচেয়ে প্রাথমিক কাজ, বিশেষ করে বলেছেন সের্গেই লাভরভ. তাঁর কথামতো, সিরিয়ার নেতৃত্ব এর মধ্যেই কোফি আন্নানের পরিকল্পনার পর্ব গুলিকে বাস্তবায়ন করছে. এটা যে, সম্ভাব্য সবচেয়ে দ্রুত গতিতে হতে পারছে না, তার জন্য দায়ী শুধু দামাস্কাসই নয়, এই প্রসঙ্গে তিনি বলেছেন:

“আমরা মনে করি যে, এই পরিকল্পনা বাস্তবায়নের জন্য সিরিয়ার সহকর্মীদের কাজকর্ম আরও বেশী নিশ্চিত ভাবে করা সম্ভব হত. অন্য দিক থেকে, আমরা এটাও লক্ষ্য না করে পারছি না যে, আন্নানের প্রস্তাব বেশীর ভাগ বিরোধী পক্ষেরই দিক থেকে গ্রহণ করা হয় নি. আজ আমরা আবারও সশস্ত্র এবং রাজনৈতিক বিরোধী পক্ষ দের কাছে আহ্বান করব, তার সঙ্গে সমস্ত দেশের কাছেই, যারা এর উপরে কোনও রকমের প্রভাব ফেলতে পারেন যে, তারা যেন সকলেই এই প্রভাব ব্যবহার করেন, যাতে অবিলম্বে অগ্নি সম্বরণ করা সম্ভব হয়, যা রাষ্ট্রসঙ্ঘের বিশেষ দূতের পরিকল্পনাতে রাখা হয়েছে”.

সের্গেই লাভরভ ঘোষণা করেছেন যে, তিনি এই বিষয়ে আগে তুরস্কের পররাষ্ট্র মন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলেছেন. আজ আঙ্কারা সিরিয়ার প্রশ্নে নিজেদের প্রভাব বৃদ্ধি করতে চাইছে. তারই সঙ্গে, লাভরভের কথামতো, নিউইয়র্ক শহরে বিরোধী পক্ষের উপরে প্রভাবের বিষয় নিয়ে আট পক্ষের আলোচনার সময়ে কথা হবে. তা বুধবার ১১ই এপ্রিল হতে চলেছে. একই সঙ্গে সিরিয়াতে অগ্নি সম্বরণের জন্য সবচেয়ে প্রধান বিষয় হবে সেখানে আন্তর্জাতিক পর্যবেক্ষক মিশন পাঠানো. তা আন্নানের পরিকল্পনার অন্য সমস্ত অনুচ্ছেদ গুলি বাস্তবায়ন করায় সহায়তা করবে. কিন্তু এখনও এই মিশন সংক্রান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় নি, এই কথা উল্লেখ করে সের্গেই লাভরভ বলেছেন:

“কোফি আন্নানের পরিকল্পনাকে সমর্থন করার পরে নিরাপত্তা পরিষদের পক্ষ থেকে রাষ্ট্রসঙ্ঘের মহা সচিবকে পর্যবেক্ষণের ব্যবস্থা নিয়ে প্রস্তাব উপস্থিত করতে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছিল. সেই গুলি এখনও প্রস্তাবিত হয় নি. আমরা আশা করছি যে, সেই গুলি খুবই আসন্ন সময়ে উপস্থিত করা হবে.দামাস্কাসে এর মধ্যেই রাষ্ট্রসঙ্ঘের কার্যকরী পরিষদের বিশেষজ্ঞরা কাজ করেছেন, যাঁরা এই মনিটরিংয়ের খুঁটিনাটি বিষয়ে সমঝোতা করেছেন. প্রথম পদক্ষেপ হিসাবে আলোচনা করা হয়েছিল এক অনতি বৃহত্ পর্যবেক্ষক দলের কথা, যাঁরা বর্তমানে গোলান হাইটস অঞ্চলে রাষ্ট্রসঙ্ঘের পর্যবেক্ষক হিসাবে কাজ করছেন, তাঁদের মধ্য থেকেই এবং যাঁরা সিরিয়াতে খুবই নিকট সময়ে উপস্থিত হতে পারবেন. এটা করা দরকার খুবই দ্রুত”.

সিরিয়ার পররাষ্ট্র দপ্তরের প্রধান ওয়ালিদ মুয়াল্লিম নিজের পক্ষ থেকে ঘোষণা করেছেন যে, দামাস্কাস আন্তর্জাতিক মিশনে রাশিয়ার পর্যবেক্ষক দলের থাকাকে স্বাগত জানায়. মুয়াল্লেম বলেছেন দেশের প্রশাসন এই মিশনের জন্য কোনও বাধা উপস্থিত করবে না.