“টাইমস” সংবাদপত্রে প্রকাশ করা হয়েছে যে, শনিবারে ইস্তাম্বুলে “ছয় পক্ষের” মধ্যস্থতাকারী প্রতিনিধি দলের সামনে (রাশিয়া, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, চিন, গ্রেট ব্রিটেন, ফ্রান্স ও জার্মানী) এই পথের কথা বলবেন ইউরোপীয় সঙ্ঘের পররাষ্ট্র বিষয়ক হাই কমিশনার ক্যাথরিন অ্যাস্টন. এর পর থেকে পশ্চিম ইরানের ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধ করা নিয়ে কোন আপত্তি করবে না, যদি তা শতকরা ২০ ভাগের বেশী না করা হয়. তাছাড়া তারা দাবী করবে এর আগে তার চেয়ে বেশী ভাগ সমৃদ্ধ করা যে কোন রকমের ইউরেনিয়াম দেশের বাইরে নিয়ে যাওয়ার ও মাটির নীচের ফের্দো পারমানবিক কেন্দ্রে ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধ করার বন্ধ করার. “ছয় পক্ষের” মধ্যস্থতাকারী দলের মধ্যে দুই পক্ষ রাশিয়া ও চিন মনে করে না যে, কোন রকমের চরম শর্ত তোলা হলে তা ইরানকে বিশ্ব পারমানবিক শক্তি নিয়ন্ত্রণ সংস্থার সঙ্গে সহযোগিতা করতে বাধ্য করবে ও তারা প্রস্তাব করেছে আন্তর্জাতিক সমাজের উদ্বেগ আলোচনার মাধ্যমেই প্রশমন করার.