লন্ডনের প্রশাসন শহরের মেট্রো রেলের স্টেশনের নাম বদলাচ্ছেন. ব্রিটেনের রাজধানীতে গ্রীষ্ম অলিম্পিক ও প্যারা- অলিম্পিকের সময়ে পোল ভল্টার এলেনা ইসিনবায়েভা, টেনিস খেলোয়াড় ইভগেনি কাফেলনিকভ, জিমন্যাস্ট আলেক্সেই নেমভ ও প্রায় তিরিশ জন সোভিয়েত ও রুশ খেলোয়াড়ের নামাঙ্কিত স্টেশন থাকবে.

    লন্ডনের মেট্রো রেলের সমস্ত লাইন অলিম্পিকের নির্দিষ্ট ধরনের খেলার প্রতি উত্সর্গ করা হচ্ছে. যেমন, বেগুনী “মেট্রোপলিটান” লাইনে স্টেশন গুলির নাম অ্যাথলেটিকসের বিশ্ব খ্যাত ব্যক্তিত্বদের নামে, সেখানে বহু সোভিয়েত ও রুশ খেলোয়াড় রয়েছেন: ইউরি সেদীখ, ভিক্তর সানেয়েভ, সের্গেই বুবকা, আর তাঁদের সঙ্গেই এলেনা ইসিনবায়েভা. এই ধরনের ব্যবস্থা পর্যটকদের মেট্রো রেলে যাতায়াতের ক্ষেত্রে খুবই সুবিধা করে দেবে, আর একই সঙ্গে অলিম্পিকের ইতিহাস মনে করিয়ে দেবে, এই বিশ্বাস নিয়ে রাশিয়ার ক্রীড়া প্রতিযোগিতা ফেডারেশনের সাধারন সম্পাদক মার্গারিতা বালাকিরেভা বলেছেন:

    “এই ধারণা এই সঙ্গে জড়িত যে, অনেক পর্যটকই আধুনিক লন্ডনের মানচিত্র নিয়ে গুলিয়ে ফেলতে পারেন. আর তাই ঠিক করা হয়েছিল যে, স্টেশন গুলির নাম দিতে হবে, যাতে লোকে এক স্টেশন থেকে অন্য স্টেশনে সহজে যেতে পারে. এটা অলিম্পিকের ইতিহাস জানার জন্যও ভাল উপায়. লন্ডনে খেলা ভালবাসেন এমন বহু লোকই জড়ো হবেন, তারা খেলার সম্বন্ধে ভাল করেই জানেন, আর তাদের রাস্তায় খুঁজে পেতে সুবিধা হবে. প্রধান ষ্টেডিয়ামের স্টেশন “স্ট্র্যাটফোর্ড” ১৪ বার অলিম্পিক স্বর্ণ পদক বিজয়ী আমেরিকার সাঁতারু মাইকেল ফেলপ্সের নামে নামকরণ করা হয়েছে. এই নাম অবশ্যই সকলেই শুনেছেন”.

    নতুন নামকরণ লন্ডনের লোকদের জন্যও সমস্যা হবে না, কারণ পুরনো নামও রয়ে যাচ্ছে, আর খেলার সময়ে স্রেফ তারই সঙ্গে জুড়ে দেওয়া হচ্ছে বিশ্ব সেরা খেলোয়াড়দের নাম. এই বিশাল ফ্ল্যাশমব অলিম্পিক দেখতে আসা লোকদের মন ভালই করে দেবে, বলে মনে করে ক্রীড়া সাংবাদিক আন্দ্রেই কার্তাশভ বলেছেন

    “ট্যুরিস্টদের তো মনে হয় না যে, এটা গুলিয়ে দেবে. উল্টোই বরং হতে পারে যে, তারা এই সব মেট্রো স্টেশনের মধ্যে অনেক ছবি তুলতে পারবেন, যেখানে ধরুন লেখা রয়েছে “এলেনা ইসিনবায়েভা”. আমি বলতে পারি: মস্কোর লোক হিসাবে যদি আমাদের “বাবুশকিনস্কায়া” মেট্রো স্টেশনের নাম পাল্টে “ডেভিড ব্যাকহ্যাম” রাখা হতো, তাহলে ভালই হতো”.

    রাশিয়ার ও সোভিয়েত তারকা খেলোয়াড়দের নাম মোটামুটি তিরিশটি স্টেশনের দেওয়া হয়েছে. সব মিলিয়ে গ্রীষ্ম অলিম্পিকের রাজধানীতে ৩৬১টি মেট্রো স্টেশন রয়েছে. অলিম্পিক সিজনের শুরুতেই সেখানে এই রকমের নাম দেওয়া স্টেশন খোলা হবে. আর আপাততঃ লন্ডনের মেট্রোপলিটানের সরকারি সাইটে এই “অলিম্পিকের লিজেন্ডারি খেলোয়াড়দের” নাম সম্বলিত মানচিত্র ভার্চুয়াল অবস্থায় দেখতে পাওয়া যাচ্ছে.