কিম চেন ঈন নিজেই নির্দেশ করেছেন যাতে বিদেশী সাংবাদিকরা “ইনহা-৩” (“ছায়াপথ-৩”) রকেট পরিদর্শন করতে পারে. এই বিষয়ে রবিবার জানিয়েছেন ছলসান অঞ্চলে উতক্ষেপণের জায়গার প্রধান জান মেন জিন. “কওয়ানমিওনসন-৩” (“আলোকরশ্মী তারা-৩”)নামে কৃত্রিম উপগ্রহ ১২-১৬ই এপ্রিল উতক্ষেপণ করা হবে. তাঁর ভাষায়, “দেশের নেতার এমন সিদ্ধান্ত প্রমাণ করে যে, উত্তর কোরিয়ার মহাকাশ গবেষণার পরিকল্পনা শান্তিপূর্ণ ”.  জান মেন জিন আরও বলেছেন যে, ভবিষ্যতে কৃত্রিম উপগ্রহ উতক্ষেপণ “রাষ্ট্রপুঞ্জের প্রস্তাবনার সঙ্গে কোনো অসংগতি নেই, কারণ উত্তর কোরিয়ার অন্য দেশগুলির মত শান্তিপূর্ণ উদ্দেশ্যে মহাকাশে গবেষণা করতে পারে”. তিনি উল্লেখ করেছেন যে, ভবিষ্যতে এই প্রজাতন্ত্র নিজের সম্পদ ও নিজের প্রযুক্তির ভিত্তিতে মহাকাশ গবেষণার পরিকল্পনা উন্নয়ন করতে চায়. অন্য দেশগুলির সাহায্যে উপগ্রহ উতক্ষেপণ করা উত্তর কোরিয়ার জন্য অত্যন্ত ব্যয়বহুল হবে.