খেলাধূলার জগতে প্রতিটি নতুন বছর – এটা অনেক আগ্রহোদ্দীপক ও মন কাড়া ঘটনার সমারোহ. ২০০৯ সালে বিশ্বের খেলাধূলার জগতের ক্যালেন্ডারের পাতায় “সিল্ক ওয়ে” নামের গাড়ীর দৌড় প্রতিযোগিতা একটা চাঞ্চল্যের সৃষ্টি করেছিল, আর তা ছিল রাশিয়া পক্ষ থেকে এক ধরনের "চ্যালেঞ্জ", যা বিশ্বের বহু দেশেরই খেলোয়াড়রা ও এই ধরনের প্রতিযোগিতার ফ্যান লোকরা খুবই সানন্দে গ্রহণ করেছিল. এই তিন বছরে প্রতিযোগিতা সারা বিশ্বেই একটা চেনা ব্র্যান্ডে পরিণত হয়েছে, যা অনেক নামী খেলোয়াড়ের সঙ্গে জড়িয়ে গিয়েছে, আর এমন এক জায়গা হয়েছে, যেখানে প্রতিযোগিতা হয় হাড্ডাহাড্ডি ও খুবই মনে রাখার মতো সব অভিযান দিয়ে.

    এই বারের “সিল্ক ওয়ে – ২০১২” প্রতিযোগিতার উপস্থাপনা করা হয়েছে মস্কো শহরে ৪ঠা এপ্রিল, আয়োজকরা অবশেষে কিছুটা গোপনীয়তার আবরণ সরিয়ে দেখতে দিয়েছেন দৌড়ের রাস্তার মানচিত্র আর আরও একবার বুঝতে দিয়েছেন যে, তাঁরা মোটেও নিজেদের চরিত্র বদল করতে চান না – তৈরী হচ্ছে খেলাধূলার গরম কালের এক বিশাল ঘটনা.

    ৭ই জুলাই মস্কোর রেড স্কোয়ার থেকে এই দৌড় শুর হতে চলেছে. কেন্দ্রীয় রাশিয়া থেকে খেলোয়াড়রা দেশের দক্ষিণ পূর্ব দিকে যাবেন, যেখানে সীমাহীণ ভলগা নদীর তীরের স্তেপ বা মালভূমি অঞ্চল, আর তারপরে প্রাচীন সিল্ক ওয়ের ক্যারাভান যাওয়ার পথ ধরে কালমিকিয়া রাজ্যের মরুভূমি হয়ে ককেশাসের দিকে পথ ধরবেন আর তারপরে কৃষ্ণ সাগরের তীরের দিকে যাওয়ার শুরু, শেষ হবে গেলেনঝিক শহরে, রাশিয়ার এক সবচেয়ে জনপ্রিয় পর্যটনের উপযুক্ত সমুদ্র সৈকতে, যা ককেশাস পর্বতমালার আধারে ধরে রাখা ছবির মত এক সমুদ্র তটে রয়েছে. এটা সত্যই গাড়ীর চালকদের জন্য একটা কষ্ট করে জেতা পুরস্কার হবে, যারা রাশিয়ার ঊষর বিস্তারে বহু কঠিন পথ অতিক্রম করে এখানে পৌঁছতে পারবেন, তাঁদের জন্য. “সিল্ক ওয়ে” প্রকল্পের প্রধান সিমিওন ইয়াকুবভ এই কথা উল্লেখ করে বলেছেন:

    “আমরা মস্কো শহরকে শুরুর শহর হিসাবেই রেখেছি, সেই শহর – যেখানে এই দৌড়ের জন্য মূল উত্সব করা হবে. কারণ বহু অংশগ্রহণ কারীই যারা বাইরের দেশ থেকে আসবেন, তাঁরা সকলে আমাদের অনুরোধ করেছেন দৌড়ের শুরু মস্কোই রাখতে. দেখা গিয়েছে যে, সকলে এখনও এই বিশাল ঘটনাকে “স্বচক্ষে দেখার” সুযোগ পান নি- মস্কোর দৌড় শুরু সময়ে যা আগে করা হয়েছে. স্রেফ তারা আশাই করতে পারেন নি যে, এই দৌড় এতটাই গুরুতর হবে, আর এতটাই দারুণ ব্যাপার হবে. তাই তো তারাই আবার করে অনুরোধ করেছেন মস্কো থেকেই শুরু করতে. আমাদের ঐতিহ্য মেনে আমরা হয় শুরু, নয় তো শেষ হওয়ার জায়গা পাল্টাই. শেষ ও আমরা হঠাত্ করেই ঠিক করি নি. গেলেনঝিক শহরে শেষ করার কারণ যে, গত বছরের বেশীর ভাগ অংশ নেওয়া চালকেরাই একমত হয়েছেন যে, ২০১৪ সালের শীত অলিম্পিকের প্রস্তুতির জন্য সোচী শহরে যে ধরনের গুরুত্বপূর্ণ আর বিশাল নির্মাণ কার্য চলছে, তার ফলে রাস্তা ঘাটে খুবই বেশী গাড়ীর ভীড় আর তার কারণেই সময় নষ্টও হয়ে যায়. তাই আমরা ঠিক করেছি দৌড়ের শেষ গেলেনঝিক শহরেই করতে. দেখা গেল, এটা এমনকি বেশী ভালই হয়েছে. দৌড়ে যারা নামবেন, তারা চতুর্থ বারের প্রতিযোগিতার শেষে সরাসরি সমুদ্র দেখতে পাবেন”.

    এই বছরের যাত্রা পথ দূরত্বে প্রায় ৪০০০ কিলোমিটার, আর তা হবে আরও প্রতিযোগিতার উপযুক্ত. আগের দৌড় গুলির তুলনায় এই বারের রাস্তা প্রায় শতকরা ৭০ ভাগই নতুন রাস্তা ধরে. আমরা আগে অজানা ছিল এমন সব পথ খুঁজে পেয়েছি, যাতে মরুভূমির অংশও যোগ করা হয়েছে. সমস্ত দৌড়ের রাস্তায় বালিয়াড়ি ঠেলে চলতে হবে প্রায় ৮০ ভাগ রাস্তা দিয়েই.

    “সিল্ক ওয়ে – ২০১২” প্রথম থেকে শেষ অবধি হবে খুবই উত্তেজনার. দম ফেলার সময় থাকবে খুব কম, আর কঠিন পথের অংশ প্রতিযোগীদের পথের সবচেয়ে আচমকা সব বিভিন্ন জায়গায় অপেক্ষা করে থাকবে. ভারসাম্য বজায় রেখে করা, কিন্তু কঠোর পথ হবে গাড়ী আর যন্ত্র পরীক্ষার আদর্শ জায়গা, মানুষের সহ্য ক্ষমতার পরীক্ষাও কম হবে না.

    দৌড় রুশ সরকার ও ক্রীড়া ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে করা হচ্ছে. তৃতীয় বার এই দৌড়ের প্রধান স্পনসর হবে “ট্রান্সনেফ্ত” কোম্পানী.