রাশিয়ার রাজনৈতিক জীবনে নতুন এক অধ্যায়ের শুরু হতে চলেছে- সক্রিয়ভাবে রাজনৈতিক দল তৈরী হওয়ার সময়. আজ থেকে রাশিয়াতে “রাজনৈতিক দল সংক্রান্ত” আইন নবীকরণের পরে ঘোষিত হয়েছে. বুধবার থেকে নতুন নিয়ম অনুযায়ী সমস্ত রাজনৈতিক আন্দোলন রুশ আইন মন্ত্রণালয়ে নিজেদের নথিভুক্ত করার জন্য আবেদন করতে পারবেন. সর্ব নিম্ন সদস্য সংখ্যা এই ক্ষেত্রে কমিয়ে করা হয়েছে ৫০০ জন. এখানে আঞ্চলিক শাখা সম্বন্ধে নিয়ম বাতিল করা হয়েছে. তাছাড়া এর পর থেকে সরকারি কর্মচারীরা কোন দলকেই ব্যাখ্যা না দিয়ে নথিভুক্ত করা থেকে বাদ দিতে পারবেন না – আইন মন্ত্রণালয় বাধ্য থাকবে কি খুঁত আছে, তা জানাতে ও ভুল সংশোধনের জন্য তিন মাস মেয়াদ দিতে.

দেশের রাজনৈতিক উচ্চ কোটিতে পড়ার জন্য নিজেদের ইচ্ছা ব্যক্ত করে এর মধ্যেই ঘোষণা করেছে রাশিয়ার অতি দক্ষিণ পন্থী জাতীয়তাবাদী সংগঠন, আর পরিবেশ সংরক্ষণকারী দল, যেমন সোশ্যাল – ডেমোক্র্যাটিক দল, তেমনই রাজতন্ত্রে বিশ্বাসী, এমনকি ইন্টারনেটে পাইরেসী যারা করে, তাদের দলও. এই প্রসঙ্গে রাশিয়ার জাতীয় স্ট্র্যাটেজি ইনস্টিটিউটের বিশেষজ্ঞ পাভেল স্ভিয়াতেনকভ বলেছেন

“আমি মনে করি যে, খুবই উঁচু ধরনের নথিভুক্ত হওয়ার সুযোগ রয়েছে ন্যাশনাল ডেমোক্র্যাটিক দলের, যারা নিজেদের সাংগঠনিক অনুষ্ঠান ইতিমধ্যেই করে ফেলেছে. খুব সম্ভবতঃ, সোশ্যাল – ডেমোক্র্যাটিক জোট তৈরীর ধারণা এই বারে গতি পাবে. শক্তিশালী হতে পারে রুশ কমিউনিস্ট পার্টির বিকল্প কমিউনিস্ট জোট. আমি মনে করি সোশ্যাল ডেমোক্র্যাটিক দল খুবই প্রভাবশালী ও কর্তৃত্ব করতে পারে, লিবারেল দলের লোকরাও যথেষ্ট শক্তিশালী হতে পারে. তাছাড়া শত কোটি পতি মিখাইল প্রোখোরভ, যিনি রাষ্ট্রপতি নির্বাচনে তুলনা মূলক ভাবে ভাল ফলই করেছেন, তিনিও নিজের যে দল সৃষ্টি করছেন, তা যথেষ্ট বেশী রকমের প্রভাব ও ওজন পাবে”.

রাশিয়ার রাষ্ট্রপতি দিমিত্রি মেদভেদেভ রাশিয়াতে নথিভুক্ত নয় এমন সমস্ত রাজনৈতিক দলের নেতৃ বৃন্দের সঙ্গে গতকাল এক সাক্ষাত্কারের সময়ে দেশে রাজনৈতিক দল নথিভুক্ত করা নিয়ে এই নতুন আইনে স্বাক্ষর করেছেন. এটি রাষ্ট্রপতি প্রস্তাবিত আইনের প্রকল্প গুলির মধ্যে আরও একটি, যা দেশে রাজনৈতিক ব্যবস্থাকে উদার করার বিষয়ে নেওয়া হয়েছে. তার কয়েক ঘন্টা পরেই ভ্লাদিমির পুতিন সারা রাশিয়া জনতা ফ্রন্টের প্রতিনিধিদের সঙ্গে দেখা করেছেন. আর সেখানেই সারা সপ্তাহের সব থেকে প্রধান খবরের কথা বলা হয়েছে – সারা রাশিয়া জনতা ফ্রন্ট এবারে সামাজিক আন্দোলন বলে নথিভুক্ত হবে, যা পুতিন রাজী হয়েছেন নেতৃত্ব দিতে. রাজনীতিবিদরা সঙ্গে সঙ্গেই মত প্রকাশ করেছেন যে, সারা রাশিয়া জনতা ফ্রন্ট সময়ের সাথেই বর্তমানের ক্ষমতাসীন দল “ঐক্যবদ্ধ রাশিয়ার” থেকে দূরে সরে যাবে, আর তার ভিত্তিতেই রাশিয়াতে নতুন ক্ষমতাসীন দল তৈরী হতে পারে. রাজনৈতিক তথ্য কেন্দ্রের জেনারেল ডিরেক্টর আলেক্সেই মুখিন একেবারেই বাদ দিতে চান নি, এমন সম্ভাবনাকে যে, আগামী বছর গুলিতে রাশিয়ার রাজনৈতিক ব্যবস্থা খুবই গুরুত্বপূর্ণ ভাবে পরিবর্তিত হতে পারে, তিনি এই প্রসঙ্গে বলেছেন:

“কিছু বর্তমানে রাশিয়ার লোকসভায় অংশ নেওয়া রাজনৈতিক দল তাদের বাস্তব যৌক্তিকতা হারাবে ও তাদের জায়গা নেবে বেশী প্রচারোন্মুখ, আগ্রাসী ও নবীন দল. আর আমার মনে হয়েছে যে, এটা হবে সেই রাজনৈতিক প্রতিযোগিতা, যার সম্বন্ধে বিরোধী পক্ষ মিছিল সমাবেশে উল্লেখ করেছে. বর্তমানের রাজনৈতিক দল গুলির শক্তি কমে যাবে (আমি এখানে প্রাথমিক ভাবে লোকসভার বিরোধী পক্ষের কথাই বলছি) সেই কারণে যে, সেই প্রতিবাদের শক্তি, যা তারা বিগত লোকসভা নির্বাচনে সোজাসুজি ভাগে পেয়েছেন, তা খুব সম্ভবতঃ আরও বেশী আগ্রহোদ্দীপক রাজনৈতিক দলের দিকেই যাবে”.

বিশেষজ্ঞরা সেই ধারণাকে বাদ দিতে পারেন নি যে, সরকার রাশিয়াতে গত পৌরসভা নির্বাচন থেকে শিক্ষা নেবে, যেখানে শতকরা তিরিশ ভাগ আসন পেয়েছেন ব্যক্তিগত ভাবে এগিয়ে আসা প্রার্থীরা, যারা কোন দলের কাছ থেকেই কোন সুযোগ নিতে চান নি.