রাশিয়া ও জাপান মঙ্গলবারে শান্তিপূর্ণ পারমানবিক শক্তি ব্যবহার সংক্রান্ত আন্তর্প্রশাসনিক চুক্তি গ্রহণের প্রক্রিয়া সম্পন্ন হয়েছে বলে একে অপরের সঙ্গে তথ্য বিনিময় করেছে. এই দলিল কার্যকরী হতে চলেছে মে মাস থেকে, খবর জানিয়েছে ইন্টারফ্যাক্স সংস্থা, রাশিয়ার রাষ্ট্রীয় কর্পোরেশন রসঅ্যাটম থেকে পাওয়া খবর বলে উল্লেখ করে. এই তথ্য বিনিময় পর্ব অনুষ্ঠিত হয়েছে রাশিয়ার রসঅ্যাটম সংস্থার প্রধান সের্গেই কিরিয়েঙ্কো ও জাপানের পররাষ্ট্র মন্ত্রী কৈতিরো গেম্বার মধ্যে. এই প্রক্রিয়ার তিরিশ দিন পরেই চুক্তি কার্যকরী হওয়ার কথা. রাশিয়া ও জাপান শান্তিপূর্ণ পারমানবিক শক্তি বিষয়ে সহযোগিতা নিয়ে ২০০৯ সালেই চুক্তি করেছিল, ২০১১ সালে দুই দেশের পার্লামেন্টই এই দলিল গ্রহণ করেছে.

    এই চুক্তির ফলে রাশিয়া ও জাপান এর পর থেকে পারমানবিক বিদ্যুত কেন্দ্র স্থাপনের কাজে সহযোগিতা করতে পারবে, সমৃদ্ধ ইউরেনিয়ামের উত্পাদন করতে পারবে, জ্বালানী তৈরী করতে পারবে. অংশতঃ, এই চুক্তির ফলে ইউরোপে সংরক্ষিত ইউরেনিয়ামের সমৃদ্ধি করণ প্রক্রিয়া রাশিয়াতে এর পরে করা সম্ভব হবে, যা জাপানের জ্বালানী শক্তি কোম্পানী গুলি রেখেছে.

    ১৯৯৯ সালে রাশিয়া থেকে জাপানে কম সমৃদ্ধ করা ইউরেনিয়াম পাঠানো শুরু হয়েছে. এই চুক্তির ফলে রাশিয়া থেকে আর দ্বিতীয় বা তৃতীয় দেশ ব্যবহার না করেই জাপানে সমৃদ্ধ ইউরেনিয়াম পাঠানো সম্ভব হবে, যা বর্তমানে করা যাচ্ছিল না.