ব্রাজিল, রাশিয়া, ভারত, চীন ও দক্ষিণ আফ্রিকার রাষ্ট্রনেতারা ভারতের রাজধানী নয়াদিল্লীতে ব্রিক্সের শীর্ষ সম্মেলনে যোগদান করার জন্য সমবেত হয়েছেন. এই গোষ্ঠীর দেশগুলির অর্থনীতি দ্রুত উন্নয়নশীল এবং সারা বিশ্বের অর্থনীতিতেও তাদের ভূমিকা ক্রমবর্ধমান. রাশিয়ার অভিপ্রায় মেক্সিকোয় শীঘ্রই অনুষ্ঠিতব্য শীর্ষ কুড়িটি দেশের শীর্ষ বৈঠকের আগে পারস্পরিক কার্যকলাপের সমন্বয় সাধন করে নেওয়া ও সবচেয়ে জটিল আন্তর্জাতিক সমস্যাগুলি নিয়ে আলোচনা করা. মেদভেদেভ বলেছেন, যে এই সংস্থা সবেমাত্র গড়া হচ্ছে, তবে তার মতে দ্রুতহারে উন্নয়নশীল অর্থনীতির দেশগুলির মাঝেমধ্যেই অর্থনৈতিক পরিপ্রেক্ষিত নিয়ে তথ্যাবলীর আদানপ্রদান করা উচিত. রাশিয়ার রাষ্ট্রপতি দক্ষিণ আফ্রিকার রাষ্ট্রপতি ও চীনের চেয়ারম্যানের সাথে আজ সাক্ষাত করেছেন. পাশাপাশি আজ নয়াদিল্লীতে ব্রিক্সের অন্তর্ভূক্ত দেশগুলির অর্থনীতিমন্ত্রীদেরও ফোরাম অনুষ্ঠিত হয়েছিল. রাশিয়ার অর্থনীতিমন্ত্রী এলভিরা নাবিবুল্লিনা সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, যে তিনি তার সহকর্মীদের বিশ্ব বাণিজ্য সংস্থায় যোগদানের কি পরিপ্রেক্ষিত রাশিয়া দেখতে পাচ্ছে, সে ব্যাপারে অবহিত করেছেন. তিনি আরও জানিয়েছেন, যে ব্রিক্সের সদস্য দেশগুলি ‘দক্ষিণ-দক্ষিণ’ নামক বিকাশ ব্যাঙ্কের পত্তণ করার ধারনায় সায় দিয়েছে, যা পারস্পরিক বিনিয়োগ ও বাণিজ্যিক লেনদেনে সহায়তা করবে. আশা করা হচ্ছে, যে ব্রিক্সের সদস্য দেশগুলি পারস্পরিক বাণিজ্যিক লেনদেনের ক্ষেত্রে জাতীয় মুদ্রা ব্যবহার করার বিষয়েও ঐক্যমতে পৌঁছাতে পারবে. শীর্ষ সম্মেলনের মূল অধিবেশন অনুষ্ঠিত হবে আগামীকাল, বৃহস্পতিবার