ধুমপান করা উচিত নাকি উচিত নয়ঃ এটাই আসল প্রশ্ন

রুশী গবেষনাকারী কোম্পানী লেভাডা-সেন্টার রুশী জনসাধারণের কাছ থেকে জনবহুল জায়গায় ধুমপান করার বিষয়ে মতামত সংগ্রহ করেছে. প্রসঙ্গতঃ স্মরণ করিয়ে দিতে চাই, যে বর্তমানে রাশিয়ায় জনবহুল জায়গায় ধুমপানের উপর নিষেধাজ্ঞা জারী করার প্রশ্নে খসড়া আইন নিয়ে উত্তপ্ত আলোচনা চলছে. জনবহুল জায়গার তালিকার অন্তর্ভুক্ত হয়েছে সব বিমানবন্দর, রেল স্টেশন, হোটেল, রেষ্টুরেন্ট, বার, দূরপাল্লার ট্রেন ও সব কর্মক্ষেত্র.

     দেখা গেছে, যে রুশী জনগণের মধ্যে মাত্র এক-পঞ্চমাংশ উক্ত খসড়া আইনের স্বপক্ষে. অধিকাংশ সাক্ষাতদাতার মতে, রেলস্টেশনে, হোটেলে, বারে, রেষ্টুরেন্টে ও অন্যান্য প্রকাশ্য এলাকায় ধুমপানের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারী করা অনুচিত. তাদের মতে, এমন বিশেষ এলাকা সৃস্টি করা যেতে পারে যেখানে ধুমপায়ীরা তামাকের গন্ধ উপভোগ করতে পারবে.

        আশা করা গেছিল, যে উপরোক্ত প্রশ্নের জবাব দিতে গিয়ে রুশী সমাজ ধুমপায়ী ও অধুমপায়ীদের দলে দ্বিধাবিভক্ত হয়ে যাবে. যাদের মতামত গ্রহণ করা হয়েছে, তাদের মধ্যে কেবলমাত্র ৩৮ শতাংশ ধুমপায়ী, ৬২ শতাংশ ধুমপান করে না. কিন্তু উভয়পক্ষের মতামত মোটামুটি একইরকম. ধুমপায়ীদের মধ্যে ১০ শতাংশ লোক ধুমপানের উপর সম্পূর্ণ নিষেধাজ্ঞা জারী করার পক্ষে, আর যারা ধুমপায়ী নয়, তাদের এক-চতুর্থাংশ এই ধারনাকে সমর্থন করে.

         রাশিয়ার বাসিন্দাদের ধুমপানের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারী করার বিষয়ে বিভিন্ন মত, এবং ঠিক কোন কোন জায়গায় নিষেধাজ্ঞা জারী করা হবে, তা নিয়েও নানা মুনির নানা মত. যেমন অধিকাংশ রুশী নাগরিকের মতে, বিমানবন্দরে ও রেলস্টেশনে অবাধ ধুমপানের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারী করা উচিত. হোটেলেও তামাকের গন্ধের তারা বিরোধী. তাদের মতে, শুধুমাত্র বিশেষ পৃথক জায়গায় ধুমপান করার অনুমতি দেওয়া যেতে পারে. আর প্রত্যেক পাঁচজন সাক্ষাতদাতার মধ্যে একজন দূরপাল্লার ট্রেনে ধুমপান অনুমোদন করার বিরোধী.

      রুশীরা বার ও রেষ্টুরেন্টে তামাকের ধোঁয়া খাওয়ার ব্যাপারে বরং অনেক বেশি সহনশীল. প্রত্যেক দশজন সাক্ষাতদাতার মধ্যে একজনের মতে, ঐসব জায়গায় ধুমপানের জন্য আলাদা স্থান রাখাটা বাড়াবাড়ি. তবে একইসাথে এক-চতুর্থাংশ মতামতদাতা কর্মক্ষেত্রে ধুমপান পুরোপুরিভাবে নিষেধ করার পক্ষে.

      অন্যদিকে, সম্প্রতি মস্কোর ও বিদেশের বিশেষজ্ঞেরা একটি বিশেষ গবেষণা করেছে – রাশিয়ার যুবসম্প্রদায়ের কাছে জনপ্রিয় সিরিয়ালগুলির অভিনেতাদের মধ্যে কতজন ধুমপান করে. একমাস সময়ের মধ্যে প্রত্যেক সিরিয়ালে কতবার ধুমপানের দৃশ্য আছে, সেটা গণনা করে রেটিং তালিকা বানানো হয়েছে. ঐ গবেষকেরা এই সিদ্ধান্তে উপনীত হয়েছেন, যে দূরদর্শনে প্রদর্শিত সিরিয়ালগুলোতে প্রকাশ্যে ধুমপানের প্রচার করা হয়ে থাকে.

       গবেষকেরা জোর দিয়ে বলছেন, যে অল্পবয়স্ক দর্শকদের জন্য নির্মিত সিরিয়ালে ধুমপায়ী কোনো চরিত্রকে দেখানো উচিত নয়. এই ব্যাপারে তারা তাদের সুপারিশ সংশ্লিষ্ট রুশী মন্ত্রণালয়গুলিতে পাঠাবে. এদিকে অনুমান করা হচ্ছে, যে এই মার্চ মাসেই রাশিয়ার সাংসদেরা জনবহুল সামাজিক জায়গায় ধুমপানের উপর সম্পূর্ণ নিষেধাজ্ঞা জারী করার বিষয় নিয়ে আলোচনা করবে. য়দি ঐ আইন গৃহীত হয়, তবে ধাপে ধাপে তা কার্যকরী করা হবে.